ঢাকাসোমবার , ৩০ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

পাটের দাম কমে যাওয়ায় ভেড়ামারার পাট চাষিরা হতাশ

সাইফুল ইসলাম, ভেড়ামারা প্রতিনিধি
আগস্ট ৩০, ২০২১ ৬:৩১ অপরাহ্ণ


কুষ্টিয়া ভেড়ামারায় পাটের দাম কমে আসায় কৃষকদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। এমৌসুমের শুরুর দিকে ভালো দাম পাওয়ায় উপজেলার কৃষকের মুখে ফুটেছে সন্তুষ্টির হাসি ফুটেছিল । কিন্তু কয়েকদিনের ব্যবধানে দাম কমে আসায় কৃষকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।


উপজেলার কৃষকরা জানান, গত বছর এই সময় প্রতি মণ পাটের দাম ছিল ১ হাজার ৭০০ টাকা থেকে ২ হাজার ২০০ টাকা। পরবর্তীতে দাম বেড়ে যায় যায়। যেসকল ফরিয়ারা পাট কিনে গুদামজাত করেছিলেন তাঁরা ৫-৬ হাজার টাকা মণ পর্যন্ত বিক্রি করেছেন।


উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় গত বছরের তুলনায় এবছর আবাদও বেড়েছে এবং আবহাওয়া ভালো থাকায় ফলনও ভালো হয়েছে। কৃষি বিভাগ থেকে সার্বিক সুযোগ-সুবিধা এবং ভালো দাম পেলে আগামিতে পাটের চাষ আরও বৃদ্ধি পাবে বলে জানিয়েছেন চাষিরা। সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলায় পাটচাষিরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। কেউ জমি থেকে পাট কাটছেন, কেউ পাটের বোঝা বাঁধছেন, কেউ কেউ মাথায় করে সেই বোঝা নিয়ে যাচ্ছে নদী-খাল কিংবা পুকুরে। আবার অনেক জায়গায় পাট জাগ দিচ্ছেন কৃষকরা। অনেকে আঁশ ছাড়িয়ে, পানিতে ধুয়ে শুকিয়ে বিক্রির জন্য বাজারে নিচ্ছেন। পাটের সঙ্গে সঙ্গে পাটখড়ির চাহিদাও রয়েছে। কিন্তু জাগ দেওয়া পাট থেকে আঁশ ছাড়ানোর জন্য অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মুজুরি হিসেবে পাটখড়ি দিয়ে দিতে হচ্ছে । কৃষকরা জানান, উপজেলায় পাটের বিক্রির জন্য বিশেষায়িত হাট বা বাজার না থাকায় স্থানীয় ফরিয়াদের কাছে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তাঁরা।


কিন্তু এ বছর মৌসুমের শুরুতেই বাজারে প্রতি মণ পাট বিক্রি হচ্ছে ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছিল। তাতে কৃষকদেরমুখে হাঁসি ফুটেছিল। কিন্ত হঠাৎই দাম কমে বর্তমানে ২হাজার ৩০০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে । দাম যদি আরোও কমে যায় তাহলে আশাহত হবেন উপজেলার পাটচাষিরা। ভেড়ামারার উত্তর রেলগেট এলাকার পাটচাষি মিন্টু মিয়া বলেন, প্রথমকে পটির দাম বেশি ছিল, তখন ভালো লাগতো কিন্ত দাম কমে যাওয়ায় খুব একটা লাভ হবে না। কারণ আঁশ ছাড়ানোর মুজুরি হিসেবে পাটখড়ি মিয়ে দিতে হচ্ছে।


ভেড়ামারা উপজেলা কৃষিকর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ শায়খুল ইসলাম জানান, উপজেলায় এ বছর পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল মোট ৪হাজার২০৫ হেক্টর। লক্ষমাত্রা অতিক্রম করে মোট আবাদ হয়েছে ৪হাজার ৩৫০ হেক্টর। উৎপাদন লক্ষমাত্রা ছিল ১১হাজার৩৫৩ মেট্রিক টন। আবাদ উৎপাদন হয়েছে ১১হাজার ৭৪৫মেট্রিকটন। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে পাটচাষে কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা করা হয় বলে তিনি জানান।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া

আপনার জন্য নির্বাচিত

সৌদি আরব বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী

বাগেরহাটে জেলেদের মাঝে জীবন রক্ষাকারী উপকরণ বিতরণ

রাঙ্গুনিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের নমিনেশন প্রত্যাশী আলহাজ্ব আলমগীর

করোনায় একদিনে বিশ্বে ৮ হাজার মৃত্যু

ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে ‘লাদেন ড্রোন’ হামলা

দেশে উন্নয়নের রোডম্যাপ করেছেন শেখ হাসিনা : আ. ফ. ম. বাহাউদ্দিন নাছিম

কাগতিয়ার পীরের গ্রেফতারের দাবিতে রাউজানের বিক্ষোভ সমাবেশ

কুয়াকাটায় বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খালে, আহত ১৩

‘কুইক রেন্টাল’ বিদ্যুতকেন্দ্র আরও ৫ বছর রাখতে সংসদে বিল

রোগী বাড়লে অক্সিজেন সংকট হতে পারে: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

নিখোঁজ হওয়া ইসরাফিলের লাশ ৫ দিন পর উদ্ধার, আটক ৩