ঢাকাসোমবার , ২৪ জানুয়ারি ২০২২
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ জুড়ে
  14. দেশ পরিবার
  15. দেশ ভাবনা

গন অনশনে যাচ্ছেন শাবিপ্রবির সকল শিক্ষার্থী

সহকারী ব্যুরো (সিলেট)
জানুয়ারি ২৪, ২০২২ ৩:৩১ অপরাহ্ণ

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত সকল শিক্ষার্থী এবার একযোগে গন অনশনে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
সোমবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুর দেড়টায় আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।
শিক্ষার্থীরা জানান, আমরা আন্দোলনকারী সকল শিক্ষার্থী এবার গণ অনশনে যোগ দিবো।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, চিকিৎসা চলাকালে কোনো অনশনকারী হাসপাতালের খাবার গ্রহণ করেনি, এগুলো পথশিশুদের বিলিয়ে দেওয়া হবে।
এদিকে, আজ সকাল সাড়ে ১১টার অনশনরত আরও ৪ শিক্ষার্থীকে মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সবমিলে এ পর্যন্ত ২০ জন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। বাকি ৭ জন ভিসির বাসভবনের সামনে অনশন করছেন। তাদের শারীরিক অবস্থাও ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশ ঠেকাতে মূল ফটকে তল্লাশি চৌকি বসিয়েছে শিক্ষার্থীরা। আইডি কার্ড ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।
এর আগে, গতকাল বিকেল থেকে উপাচার্যের বাসভবনের মূল ফটকের সামনে মানপ্রাচীর তৈরি করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা। এরপর রাত ৮টায় উপাচার্যের বাসভবনের বিদ্যুৎ, ইন্টারনেট ও পানি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় বিক্ষুব্ধরা। এরপর থেকে উপাচার্য অবরুদ্ধ অবস্থায় আছেন। পুলিশ ছাড়া কাউকে ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছেনা শিক্ষার্থীরা।
প্রসঙ্গত, গত ১৩ জানুয়ারি রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের প্রাধ্যক্ষ জাফরিন আহমেদের বিরুদ্ধে অসদাচরণের। অভিযোগ তুলে তাঁর পদত্যাগসহ তিন দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন হলের কয়েক শ ছাত্রী। শনিবার সন্ধ্যার দিকে হলের ছাত্রীদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ। রোববার দাবি আদায়ে ছাত্রীরা উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুলিশ উপাচার্যকে উদ্ধার করতে গিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশি সংঘর্ষ হয়। এতে অর্ধশত শিক্ষার্থীসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হন। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগেরও নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। তবে এ ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া