ঢাকাসোমবার , ১০ জানুয়ারি ২০২২
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য
ধ্বংস হচ্ছে জীববৈচিত্র

ক্ষমতাসীন ও প্রশাসন যোগসাজশে মেঘনা নদীতে ঘের দিয়ে মাছ শিকার

মাজহারুল ইসলাম, সোনারগাঁ প্রতিনিধি
জানুয়ারি ১০, ২০২২ ৩:১০ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা নদীর স্বচ্ছপানি ও দেশী প্রজাতির সুস্বাদু মাছের অভয়াশ্রম হিসেবে পরিচিত নুনেরটেক এলাকায় নদীর মাছ ও জীব বৈচিত্র ধ্বংস করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ নেতাকর্মী ও স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে।

মেঘনা নদীর তীরবর্তী নুনেরটেক এলাকার জেলেদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে মেঘনা নদীর শম্ভুপুরা ইউনিয়নের গজারিয়া থেকে বিষনাদী পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে সিন্ডিকেট করে প্রভাবশালী ব্যক্তিরা মেঘনা নদীর বুক জুড়ে গাছের ডালপালা ও বাঁশ পুঁতে নিষিদ্ধ সূঁতি জাল ফেলে চারদিকে ঘের দিয়ে পোনা মাছ সহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ শিকার করছে। এভাবে মাছ শিকারের ফলে মাছ সহ জীববৈচিত্র ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি সোনারগাঁয়ে গড়ে উঠা অনেক শিল্পকারখানার দুষিত বর্জ্যমিশ্রিত পানির কারনে মেঘনার শাখা নদী, খাল ও জলাশয়গুলোতে এখন আর মাছ নেই বললেই চলে। কিন্তু মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া থেকে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ হয়ে আড়াইহাজার উপজেলার বিষনাদী ফেরিঘাট এলাকায় মেঘনার পানি এখনও টলটলে স্বচ্ছ। যদিও গত কয়েক বছর ধরে স্থানীয় কিছু প্রতিষ্ঠানের বর্জ্য মেঘনায় নিষ্কাশন হচ্ছে। তার পরেও বর্তমানে মেঘনা নদীর গজারিয়া থেকে বিষনাদী পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দেশী প্রজাতির সুস্বাদু মাছ ধরা পড়ছে জেলেদের জালে। দেশীয় প্রজাতির বাইম, বাইলা, কৈ, শিং, মাগুর, পুঁটি, রুই, কাতলা, আইড়, চিতল, শৈল, কাচকি, বোয়াল, টেংরা, পাবদা, মলাই সহ নানা প্রজাতির দেশীয় মাছ প্রতিদিন কাকডাকা ভোরে সোনারগাঁয়ের বৈদ্যেরবাজার ফিসারি ঘাটে বিক্রি হচ্ছে।

স্থানীয়দের চাহিদা পুরন করে এসব মাছ ঢাকা শহরের বিভিন্ন বাজারে বিক্রি হচ্ছে।মেঘনার সুস্বাদু মাছের স্বাদ নিতে ঢাকা নারায়ণগঞ্জ থেকে অনেক ভোজন বিলাসী মানুষ প্রতিদিন বৈদ্যের বাজার ফিসারি ঘাটে ভিড় জমায়।

কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে মেঘনা নদীর গজারিয়া থেকে বিষনাদী পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে একটি সিন্ডিকেট করে প্রভাবশালী ব্যক্তিরা মেঘনা নদীর বুক জুড়ে গাছের ডালপালা ও বাঁশ পুঁতে ছোট জাল ফেলে চারদিকে ঘের দিয়ে পোনা মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ শিকার করছে। এভাবে মাছ শিকারের ফলে মাছসহ জীব বৈচিত্র ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

তথ্য অনুসন্ধানে ও মেঘনা নদীতে সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়,  নদীর বুক জুড়ে সোনারগাঁ অংশের শম্ভুপুরা এলাকা থেকে নুনেরটেক পর্যন্ত কয়েকশত ঘের দেওয়া হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ঘের দেওয়া হয়েছে মাছের অভয়াশ্রম হিসেবে পরিচিত নুনেরটেক ও আনন্দবাজার এলাকায়। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাদের প্রশ্রয়ে বিগত তিন বছর ধরে একটি সিন্ডিকেট গড়ে তোলা হয়েছে। সিন্ডিকেটের সদস্যরা নদীর এসব ঘের পরিচালনা করে থাকে। আব্দুল আলী নামের নুনেরটেক গ্রামের একজন জেলে জানান,  নেতারা সিন্ডিকেট করে নদীতে ঘের দেওয়ার কারণে স্থানীয় শত শত জেলে বেকার হয়ে পড়েছে। ঘেরের কারনে তারানদীতে জাল ফেলতে পারছেনা। ঘেরের সামনে জাল ফেললে নিরীহ জেলেদের মারধর করা হচ্ছে।

গত কয়েক বছর ধরে নদীর বেশির ভাগ অংশ জুড়ে ঝোঁপ দেওয়ার কারণে মৎস্য সম্পদ ও জীব বৈচিত্র ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে পাশা পাশি নদীতে নৌযান চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।নুনের টেক গ্রামের বাসিন্দা হোসেন মিয়া জানান, আমি নদীতে চারটি ঘের দিয়েছি। এখান থেকে যে আয় হবে তার অংশ কিছু লোককে দিতে হবে। তাছাড়া প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উপহার হিসেবে মাছ দিতে হবে। এভাবেই আমরা প্রতিবছর ঘের দেই,  এতে মৎস্য আইন লঙ্ঘন হয় কিনা আমার জানা নেই। সাতভাইয়া পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মুকবুল হোসেন জানান, একটি ঘের থেকে কমপক্ষে ১০ থেকে ১৫ লাখ টাকার মাছ পাওয়া যায়।লাভের ৫০ ভাগ নেতাদের দিতে হয় আর ৫০ ভাগ টাকা যারা ঘের দেয় তারা ভাগাভাগি করে নেয়। এ হিসেবে প্রতি বছর কার্তিক, পৌষ ও মাঘ মাসে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে সিন্ডিকেটের সদস্যরা। স্থানীয় বারদি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল হক জানান,  ঘের দেওয়ার সিন্ডিকেটে শুধু আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের একা দোষ দিয়ে লাভ নেই । এখানে স্থানীয় বিএনপির একটি অংশও সরাসরি জড়িত।

উপজেলা জৈষ্ঠ মৎস কর্মকর্তা জেসমীন আক্তার জানান, মৎস্য আইন লঙ্ঘন করে যে সব ব্যক্তিরা নদীতে ঘের দিয়ে মাছ শিকার করছে তাদের নোটিশ দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ না থাকায় নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছে না। অনিয়মের সঙ্গে প্রশাসনের কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া

আপনার জন্য নির্বাচিত