ঢাকাশুক্রবার , ১৩ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গণমাধ্যম
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ জুড়ে
  15. দেশ পরিবার

দুর্ভোগের নাম বাঁশখালী বহদ্দার হাট সেতু

dWPKOARWAa
আগস্ট ১৩, ২০২১ ৪:৪৫ অপরাহ্ণ
দুর্ভোগের নাম বাঁশখালী বহদ্দার হাট সেতু

বাঁশখালী প্রধান সড়কের পুঁইছড়ি বহদ্দারহাট বেইলী সেতুটি সংস্কারের জন্য খুলে ফেলা হয়েছে প্রায় সাত মাস। এরপর সড়কের পাশে গাছের খুঁটি গেড়ে বেইলী সেতু স্থাপন করে নির্মাণ করা হয়েছিল বিকল্প সড়ক। কিন্তু বর্ষার আগে সেতুর কাজ শেষ না হওয়ায় বিকল্প বেইলী সেতুর উভয় পাশে কর্দমাক্ত সড়কে চলাচল করছে চার উপজেলার যানবাহন। গর্তে যানবাহন আটকে থাকায় সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। যাত্রায় বেড়েছে ভোগান্তি।



কক্সবাজারের কতুবদিয়া, পেকুয়া, মহেশখালী এবং দক্ষিণ বাঁশখালীর লোকজন এই সেতুটি ব্যবহার করে চট্টগ্রাম শহরে যাতায়াত করে। এছাড়া মহেশখালীতে নির্মাণাধীন কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে মালামাল পরিবহন ছাড়াও কাভার্ড ভান ও ঢাকাগামী বাস নির্মাণাধীন সেতুটি ব্যবহার করে চলাচল করে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিকল্প বেইলী সেতুর দুপাশে সড়ক কর্দমাক্ত হওয়ায় সৃষ্টি হয়েছে গর্ত। এতে আটকে যাচ্ছে সবধরনের যানবাহন। লোকজন ঠেলে গর্ত থেকে তুলছে গাড়ি। ভারী যানবাহন আটকে গেলে অন্য যানবাহনের সহায়তায় গর্ত থেকে তুলতে হচ্ছে আটকে থাকা যানবাহন। প্রতিদিন দীর্ঘ যানজট তৈরী হচ্ছে।
দোহাজারী সড়ক ও জনপথ (সওজ) সূত্রে জানা যায়, নির্মাণাধীন সেতুটির দৈর্ঘ্য ১০ মিটারের কাছাকাছি। প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যায়ে নির্মাণ হচ্ছে পাকা সেতুটি। এর আগে এটি পাকা কালভার্ট ছিল। যেটি বছরখানেক পূর্বে ভেঙে যায়। এর মাসখানেকের মধ্যে বেইলী সেতু নির্মাণ করা হয়। সেটিও ভারী যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হওয়ায় উদ্যোগ নেওয়া হয় পাকা সেতু নির্মাণের। যেটির কাজ করছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আমিনুল হক প্রাইভেট লিমিটেড। কাজটি শেষ করার সময় বেঁধে দেওয়া হয় ছয়মাস। কিন্তু এই সময়ের মধ্যে বিভিন্ন কারণে কাজ শেষ করা যায়নি।

বাঁশখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী মোহাম্মদ গালীব বলেন, বর্ষাকাল শুরু হওয়ায় পর থেকে বিকল্প সেতুটি ব্যবহার যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হয়েছে পড়েছে। সড়ক কর্দমাক্ত হয়ে যাওয়ায় ট্রাক, বাস, রোগী পরিবহনকারী অ্যাম্বুলেন্স আটকে যাচ্ছে গর্তে। সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। দ্রুত এটি সংস্কার করা খুবই জরুরী।

কুতুবদিয়া উপজেলা উত্তর ধুরুং এলাকার নবী আলী বলেন, এমনিতে কুতুবদিয়া চ্যানেল পার হয়ে বাড়ি থেকে আসা যাওয়া করতে হয়। এর উপর এই সেতুটির উভয়পাশ কর্দমাক্ত হওয়ায় সৃষ্টি হচ্ছে লম্বা যানজট। যাত্রা বিলম্ব হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা জহির উদ্দিন বাবর বলেন, বৃষ্টি হলেই বিকল্প বেইলী ব্রীজটির উভয় পাশে লেগে যায় যানজট। কর্দমাক্ত ও ঢালু সড়ক হওয়ায় দুর্ঘটনায় আহত হচ্ছে লোকজন। দ্রুত পাকা সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ করা দরকার।

দোহাজারী সড়ক ও জনপথের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন সিংহ বলেন, বর্ষায় ভারী বৃষ্টি আর খালটিতে অতিরিক্ত জোয়ারের পানির কারণে ঠিকাদার কাজ করতে পারছেনা। এছাড়া ওই স্থানের মাটি পানি লাগলেই কাদা হয়ে যায়। তাই বালু ফেলা হলেও সেটিও কাজে আসছে না। আজ শুক্রবার (১৩ আগস্ট) বিকল্প সেতুর কর্দমাক্ত সড়কে ইট ফেলা হয়েছে যানবাহন চলাচলের উপযোগী করার জন্য।

প্রতিবেদক

সর্বশেষ - আইন আদালত