ঢাকামঙ্গলবার , ১০ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গণমাধ্যম
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ জুড়ে
  15. দেশ পরিবার

খুলনায় একসাথে দুই ডোজ টিকা পুশ, তদন্ত কমিটি গঠন

সুনীল কুমার দাস, ব্যুরো প্রধান (খুলনা)
আগস্ট ১০, ২০২১ ৬:০৮ অপরাহ্ণ


খুলনায় মোঃ রোকনুজ্জামান (৩৬) নামের এক ঠিকাদারকে দুই ডোজ করোনা টিকা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।


আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে খুলনার ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে টিকা নিতে আসলে সেখানকার কর্তব্যরত নার্স তাকে পরপর দুইবার টিকা দেন। তিনি খুলনার কয়রা উপজেলা শ্রীফলতলা গ্রামের বোনাই মোড়লের ছেলে। তিনি খুলনা মহানগরীর টুটপাড়া মহিবাড়ী খালপাড় এলাকায় থাকেন।

ভুক্তভোগী রোকনুজ্জামান জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আমি টিকা দেয়ার জন্য চেয়ারে বসি। এক নার্স এসে আমাকে জিজ্ঞাসা করেন আমার হাই প্রেসার আছে কিনা। আমি বললাম যে, আমার প্রেসার নেই। এরপর তিনি আমাকে টিকা দিয়ে কাগজটা দেন। এ সময় ওই নার্স আমাকে কিছুক্ষন বসে বিশ্রাম নিতে বলেন। আমি সেখানেই বসেছিলাম। ১ মিনিট পরেই অন্য নার্স এসে আমাকে আবার টিকা দিয়ে দেন। আমি কিছু বলার আগেই নাসর্টি আমার বাহুতে সুঁই ফুটিয়ে দেন। এ সময় আমার পাশে থাকা একজন বলেন, ওনাকে কেন টিকা দিলেন? ওনাকে তো টিকা দেওয়া হয়ে গেছে। আমি তখন বলি আমাকে টিকা দিয়েছে, আবার দিলেন কেন? আপনি আমার কাছে জিজ্ঞাসা করেছেন ? নার্সটি সেই সময় কোন উত্তর না দিয়ে বের হয়ে যান।

কামরুজ্জামান অভিযোগ করেন বলেন, টিকা দেয়ার পর নার্সরা আমাকে তড়িঘড়ি করে হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। আমি প্রতিবাদ করলে আমাকে হাসপাতালের বেডে শুইয়ে রেখেন। টিকা কেন্দ্রের পাশের ৬ নং বেডে আছি। শরীর বেশ দুর্বল লাগছে।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. এস এম মুরাদ হোসেন ওই যুবককে একসাথে ২ ডোজ টিকা দেয়ার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ভুল করে ২ বার টিকা দেওয়া হয়েছে। ওই যুবকের কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি। তিনি সুস্থ আছেন। তিনি নিজেও তাকে দেখে এসেছেন। তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা  হয়েছে।

খুলনা সিভিল সার্জন নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, হাজার হাজার মানুষকে টিকা দেওয়া হচ্ছে এখন পর্যন্ত কোন ভুল হয়নি। ভুল করেই এটা হয়েছে। নার্স দ্বিতীয়বার যখন টিকা দিতে আসলো তখন যদি টিকাগ্রহণকারী ব্যক্তি আপত্তি করতো তাহলে আর দ্বিতীয়বার টিকা দেয়া হতো না। তিনিও আপত্তি করেননি। তাকে টিকা দেয়ার পর ৩ ঘন্টা নিবিড় পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছিলো। কোন প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি । বর্তমানে রোকনুজ্জামান সুস্থ্য রয়েছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নিদের্শ দেওয়া হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পরে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

এর আগে গত ৭ আগস্ট নগরীর সোনাডাঙ্গা ময়লাপোতা এলাকার ৭৩ বছরের বৃদ্ধা জহুরা বেগমকে দুইবার করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছিল। হাফিজুর রহমান ঈদগাহ ময়দান টিকাদান কেন্দ্রে তাকে ২ বার ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি বাসায় সুস্থ অবস্থায় রয়েছেন।

সর্বশেষ - আইন আদালত