ঢাকাশুক্রবার , ৬ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গণমাধ্যম
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ জুড়ে
  15. দেশ পরিবার

মিললো পরীর আরেক স্বামীর খোঁজ

মারুফা পারভীন
আগস্ট ৬, ২০২১ ১১:০০ পূর্বাহ্ণ

বর্তমান সময়ে টক অব দ্যা কান্ট্রি চিত্রনায়িকা পরীমণির মাদকসহ গ্রেপ্তার ইস্যু। এদিকে তার আটকের পর থেকেই একের পর এক গোপন তথ্য ফাঁস হচ্ছে। এবার সামনে এসেছে তার প্রথম স্বামীর নাম। এর আগে ৩ জনের সঙ্গে বিয়ের বিষয় সামনে এলেও তারও আগে একটি বিয়ে করেছিলেন পরীমণি। সেটিই ছিল ভালোবাসা সীমাহীন ছবির নায়িকার প্রথম বিয়ে।

গতকাল নায়িকার ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

জানা গেছে, আজকের বিলাসবহুল জীবনে অভ্যস্ত নায়িকা পরী পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার ইকড়ি ইউনিয়নের শিংখালী গ্রামে মামার বাড়িতে থেকে বড় হয়েছেন। তার প্রকৃত নাম শামসুন নাহার স্মৃতি। তার নানারা আর্থিকভাবে অসচ্ছল ছিলেন। সেখানে এসএসসি পাসের পর খালাত ভাইয়ের সঙ্গে প্রথম বিয়ে হয় পরীমণির।

বিষয়টি নিয়ে পরীর নানা শামসুল হক গাজী দেশ’কে জানান, মূলত পরীমণির মায়ের মৃত্যুর পর তাকে আমাদের বাড়িতে নিয়ে আসি। আমাদের বাড়িতে থেকে স্থানীয় স্কুলে লেখাপড়া করে সে। পরী খুব মেধাবী ছিল। গরিব হওয়ায় কোনো প্রাইভেট পড়তে পারেননি। তারপরও সে ভগিরাতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছিল।

তবে এসএসসিতে প্রথমবার ফেল করলেও দ্বিতীয়বার পাস করে সে। পরবর্তীতে স্থানীয় একটি কলেজে ভর্তি হলেও বরিশালে থাকা খালাতো ভাই ইসমাইল হোসেনের সঙ্গে বিয়ে হয়। সেখানে ২ বছরের দাম্পত্য জীবনের পর বিচ্ছেদ হয়। বলছিলেন পরীর নানা।

এ ব্যাপারে স্থানীয়রা জানিয়েছেন, পরীর প্রথম বিয়ে ভেঙেছিল উচ্ছৃঙ্খল জীবনযাপনের জন্য। এরপর ২০১৯ সালে দ্বিতীয় ও ২০২০ সালে তৃতীয় বিয়ে হয় পরীমণির।

এছাড়া একজন ফুটবলারকে বিয়ের খবরও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবিসহ ভেসে বেড়িয়েছে। তার নাম ফেরদৌস কবীর সৌরভ। বাড়ি যশোরের কেশবপুরে। তিন বছর প্রেম করার পর ২০১২ সালের ২৮ এপ্রিল বিয়ে করেছিলেন তারা। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে পরী ও সৌরভের কয়েকটি ঘনিষ্ঠ ছবি ছড়িয়ে পড়েছিল ফেসবুকে। তখন বিয়ের কাবিননামার একটি কপিও ভাইরাল হয়।

ক্যারিয়ারের শুরুতে বেশ কিছু নাটকে অভিনয় করেন পরী। সেখানে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। নাটকে কাজের সময়ই বড় পর্দায় কাজের সুযোগ পান তিনি। ২০১৪ সালে চলচ্চিত্র জগতে আসেন। শামসুন নাহার স্মৃতি থেকে পরীমণি নামে পরিচিতি পান। এ পর্যন্ত ৩০টি চলচ্চিত্রে কাজ করলেও কোনো ছবিই ব্যবসা সফল হয়নি তার। ছবি হিট না হলেও ছোট-বড় মিলিয়ে ৫-৭টি বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবে দেখা গেছে তাকে। পরীকে পিরোজপুর থেকে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আনেন প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ।

এদিকে বনানী থানায় দায়ের করা মাদক মামলায় প্রযোজক-অভিনেতা রাজেরও ৪ দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সর্বশেষ - আইন আদালত