ঢাকারবিবার , ১ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গণমাধ্যম
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ জুড়ে
  15. দেশ পরিবার

বদলে গেছে চরাঞ্চলের মানুষের জীবনযাত্রা

মফস্বল সম্পাদক
আগস্ট ১, ২০২১ ৪:৫৩ অপরাহ্ণ


জামালপুরের পিছিয়ে পড়া বিভিন্ন চরাঞ্চলের হতদরিদ্র মানুষদের জন্য সরকারী ও বেসরকারী উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে তাদের জীনবযাত্রায় মান অনেকেটাই বৃৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন,গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্প স্থাপন করে চরের মানুষের আত্মকর্মসংস্থান সুযোগ সৃষ্টির ফলে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছে তারা।



প্রায় দুই যুগের বেশী সময় ধরে বন্যা,নদী ভাঙন সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে পিছিয়ে রয়েছে জামালপুর জেলার যমুনা ও ব্রম্মপূত্র তীর চরাঞ্চলের মানুষেরা। বিশেষ করে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর, মাদারের চর, মাইসানির চরাঞ্চলের মানুষের যাতায়াতের রাস্তা, নদী ভাঙনে গৃহহীন হয়ে পড়া ও জীবিকার জন্য তেমন কোন ব্যবস্থা না থাকায় অনেক কষ্টে দিনতিপাত করতে হতো তাদের। তবে বর্তমানে এসডিজি বাস্তায়নের কাঁচা পাকা রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন,ব্রীজ ও কালর্ভাট স্থাপন ও গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মান করার পাশাপাশি তাদের বিভিন্ন কর্মমূখী প্রশিক্ষন গ্রহন করানোর ফলে এখন আর চরাঞ্চলের মানুষ পিছিয়ে নেই।


মেরুরচর ইউনিয়নের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মোজাফফর হোসেন জানান, আগে চরাঞ্চলের রাস্তা-ঘাট খুবই খারাপ ছিলো। বর্তমানে মাদারের চর থেকে মাইছানির চর হয়ে কলকিহারা পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মান করার ফলে সহজে যাতায়াতে তাদের ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য খুই ভালো হয়েছে। মাদারের চরের তফলু মিয়া জানান,এই চরের সাথে ব্রীজ নির্মান করার ফলে দেওয়ানগঞ্জের সাথে চলাচলে সুবিধা হয়েছে। পাশাপাশি নৌকায় নদী পার হতে প্রায় ঘন্টা খানিক সময় লেগে যেত যা থেকে এখন তাদের সময় অনেটাই কমে গেছে।


অপর দিকে মাইসাইনি চরের ভূমিহীন ফুলবানু জানান, দূর্যোগপূর্ণ এসব চরাঞ্চলে আগে তাদের কোন ঘরবাড়ি ছিলো না। বর্তমান সরকার মুজিব বর্ষে এসব চরাঞ্চলের মানুষের জন্য বিনামূল্যে পাকা ঘর নির্মান করে দিয়েছে। আর তারা ঘর পেয়ে সকলেই সেখানে হাস-মুরগী পালন করে স্বাবলম্বী হয়ে তাদের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি পেয়েছে।


বকশীগঞ্জের মেরুরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মোঃ জাহিদুল ইসলাম জেহাদ জানান,বর্তমান সরকার হতদরিদ্রদের জন্য ভিজিএফ,ভিজিডি,ও ভুমিহীনদের আশ্রয় দিয়ে জনগনকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। সেই সাথে রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন করার ফলে এসব চরের মানুষ এখন শহরের সাথে যাতায়াত করে আধুনিক জীবনের ছোয়া পাচ্ছে।


এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনমুন জাহান লিজা জানান, হতদরিদ্র, অতিদরিদ্রদের জন্য টিআর, জিআর রিলিফসহ সরকারী ও বেসরকারী বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে চরাঞ্চলের মানুষের সহযোগীতা করা ফলে একদিকে যেমন তাদের জীবন যাত্রার মানবৃদ্ধি পাচ্ছে তেমনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন গ্রাম হবে শহর তা বাস্থবায়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার।


এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ তালুকদার জানান, চরাঞ্চলের পিছিয়ে পড়া এসব মানুষদের জন্য সরকারের উন্নয়ন বরাদ্দ সুষম বন্টনের মাধ্যমে সকলের সমন্বয়ে কাজ করে চরাঞ্চলের মানুষের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। সেই সাথে যে কোন সমস্যা সমাধানে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান তারা।

সর্বশেষ - আইন আদালত