ঢাকাশনিবার , ২৪ জুলাই ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গণমাধ্যম
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ জুড়ে
  15. দেশ পরিবার

শান্তির বার্তা নিয়ে প্রতিপক্ষের বাড়িতে কাদের মির্জা


শান্তির বার্তা’ নিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত আবু নাসের চৌধুরীর বাড়িতে গিয়ে তার নাতিদের সঙ্গে নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা দেখা করেছেন।



আজ শনিবার (২৪ জুলাই) সকাল সোয় ৭টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সেই বাড়িতে যান তিনি।


এ সময় নোয়াখালী জেলা পরিষদ সদস্য ও আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি আক্রাম উদ্দিন চৌধুরী সবুজ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগ সভাপতি আজম পাশা চৌধুরী রুমেল ও চরহাজারীর সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম হোসেন চৌধুরী রাফেলের ঘরে যান তিনি। এরা সবাই কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী বলে জানা গেছে।


এদিকে, আজ শনিবার সকালে আবু নাসের চৌধুরীর বাড়িতে যাওয়ার ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন কাদের মির্জার অনুসারীরা। এতে তারা দাবি করেন, জেলা পরিষদ সদস্য আক্রাম উদ্দিন চৌধুরী সবুজের দাওয়াতে কাদের মির্জা তাদের বাড়িতে চা-চক্রে যোগ দিয়েছেন।


তবে আক্রাম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘বিষয়টি আমি কিছুই জানি না। সকালে হঠাৎ লোকজন নিয়ে মেয়র কাদের মির্জা আমার ঘরে এসে হাজির। এ সময় মেয়র চিকিৎসার জন্য আমেরিকা যাবেন বলে অতীতের সব কিছু ভুলে এলাকায় শান্তি প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান।’


পরে তিনি (সবুজ চৌধুরী) নিজের ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাসও দেন। এতে তিনি লিখেন, ‘আজ সকাল সাড়ে ৭টায় বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আমেরিকা সফরের উদ্দেশে সাক্ষাৎ করতে আমাদের বাড়িতে আসেন, সবার কাছে দোয়া চেয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন, কেউ ভুল বুঝবেন না।’
অপরদিকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরীও মেয়রের সৌজন্য সাক্ষাতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘তিনি হঠাৎ কাউকে না জানিয়ে বাড়িতে চলে এসেছেন। একজন মেয়র কারও বাড়িতে আসলে তো আর বের করে দেয়া যায়না তবে একটি সূত্রে জানাগেছে ,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রুমেল চৌধুরী বড় ভাই আক্রাম উদ্দিন চৌধুরী সবুজের দাওয়াতে মেয়র কাদের মির্জা সাবেক এমপি আবু নাসের চৌধুরীর বাড়িতে চা-চক্রে অংশগ্রহণ করেছেন।


এদিকে, কাদের মির্জার ঘোষিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (মূলত সহ-সভাপতি) ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুল দাবি করেন, সবুজ চৌধুরীসহ তার লোকজন মেয়রের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন।
তবে মেয়রের ভাগনে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু সেই দাবি প্রত্যাখ্যান করে বলেন, ‘রুমেল চৌধুরীস ও সবুজ চৌধুরীরা মেয়রের সঙ্গে যোগ দেয়ার প্রশ্নই আসে না। আমরা সিদ্ধান্তই নিয়েছি তার সঙ্গে (কাদের মির্জা) আর কখনো উপজেলা আওয়ামী লীগ রাজনীতি করবে না।

সর্বশেষ - আইন আদালত