ঢাকাবুধবার , ৭ জুলাই ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গণমাধ্যম
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ জুড়ে
  15. দেশ পরিবার

মৌলভীবাজারে বিদেশগামীদের ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশনে ভোগান্তি

dWPKOARWAa
জুলাই ৭, ২০২১ ২:১৩ অপরাহ্ণ


সরকার প্রবাসী কর্মীদের কর্মস্থলে যেতে নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত করতে বিদেশগামীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনা ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশনে নানা ভোগান্তিতে পড়েছেন মৌলভীবাজারের বিদেশগামী কর্মীরা।


 

জানা গেছে, সরকারি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া শুরু করেছে। কিন্তু মৌলভীবাজারে প্রবাসীরা একাধিকবার রেজিস্ট্রেশন করার অভিযোগ করেছেন। অনেকে উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে রেজিস্ট্রেশন করে আবার জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসে রেজিস্ট্রেশন করছেন বলে জানিয়েছেন। টিকা প্রাপ্তিতে অনলাইন সুরক্ষা অ্যাপে সাবমিট হচ্ছে না আবেদন ।

সৌদিআরবগামী প্রবাসী মিসবাহ মিয়া বলেন, আমি ফেসবুকে দেখি উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে বিদেশগামীদের ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশন হচ্ছে। আমার ভিসার মেয়াদ শেষ হতে আর ১৫ দিন আছে। তাই আমি বিজ্ঞপ্তি দেখেই উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে রেজিস্ট্রেশনে যাই। সেখানে তারা পাসপোর্ট, আকামা, ভিসাকপি, জাতীয় পরিচয় পত্র কপি জমা রাখে। তারা জানায় আমার নিবন্ধন হয়েছে। আরেক বার এসে ভ্যাকসিনের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। উপজেলা ৫০ টাকা খরচ রেখেছে ফাইল রেডি করে দেয়ার জন্য।

 

তিনি আরও বলেন, আমি যখন জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি) আসি তখন জানতে পারি আমার কোনো রেজিস্ট্রেশনই হয়নি। এখানে এসে আমি আবার রেজিস্ট্রেশনের জন্য ২০০ টাকা অনলাইন পেমেন্ট দিতে হয়েছে। তারা একেক জন একেক কথা বলে। লকডাউনের মাঝে আমাদের এক অফিস থেকে অন্য অফিসে যেতে হচ্ছে। একাটুনা ইউনিয়নের প্রবাসী আলী হোসেন বলেন, আমার এলাকার কয়েকজন প্রবাসী উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারে ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশন করছে। তাই আমিও উপজেলায় রেজিস্ট্রেশন করি। চৌমোহনার একটি দোকান থেকে ৫০ টাকা দিয়ে ফরম ফিলাপ করে নিয়ে যাই। উপজেলায় শুধু ফরম জমা রেখেছে। তারা বলেছে এক সপ্তাহ পরে যোগাযোগ করবেন। এক সপ্তাহ পরে আমি আবার উপজেলা গিয়ে খবর নিতে যাই। তারা জানায় লকডাউনের জন্য সব কিছু বন্ধ হয়ে গেছে। তাই লকডাউন পরে তারা অফিস থেকে যোগাযোগ করবে। পরে আমাকে একজন বলেন জনশক্তি অফিসে নাকি রেজিস্ট্রেশন হচ্ছে। তাই আমি জনশক্তিতে আবার ২০০ টাকা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করেছি।

 

অভিযোগের ভিত্তিতে সরজমিনে জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের কম্পিউটার অপারেটর জানান, উপজেলাতে রির্টান মাইগ্রেন্টে রেজিস্ট্রেশন করে আমাদের কাছে আসে। কিন্তু রির্টান মাইগ্রেন্টে রেজিস্ট্রেশন করলে ভ্যাকসিনের রেজিস্ট্রেশন হবে না। প্রবাসীরা অফিসে এসে বলেন, উপজেলায় রেজিস্ট্রেশন করে এসেছি আমাদের ভ্যাকসিনের রিসিট দেন। তারা অফিসে এসে ঝামেলা করে বলে কয়বার রেজিস্ট্রেশন করবো। উপজেলায় রেজিস্ট্রেশন করেছি বললে আমাদের কথা বুঝতে চান না। মৌলভীবাজার উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারের পরিচালক ফজলু সোহাগ বলেন, উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশন হচ্ছে। ডিসি অফিস থেকে নির্দেশনা এসেছে বিদেশগামীদের একটি ডাটাবেজ করার জন্য। আমরা যারা বিদেশ যেতে চায় তারা তাদের পাসপোর্ট, আকামা, ভিসা কপির একটা ফরওয়াডিং করে ডিসি অফিস পাঠিয়ে দিচ্ছি। আমাদের সব কাজ অফলাইনে হয়। আমরা যেহেতু টাইপ করে ফাইল রেডি করে দেই তাই আবেদন ফি ৫০ টাকা রাখি।

 

জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের জনশক্তি জরিপ কমকর্তা মো. সিদিকুর রহমান আকন্দ বলেন, আমাদের এখানে চলমান আছে যারা প্রবাসী ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশনের জন্য আসছে তাদের ২০০ টাকা বিকাশ পেমেন্ট করে। সেই নম্বর, পাসপোর্ট নম্বর, মোবাইল নম্বরসহ রেজিস্ট্রেশন করে দিচ্ছি। ই- পাসপোর্টে নির্ধারিত ২২০ টাকার সোনালি ব্যাংক অথবা প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের পেঅর্ডার/অনলাইন পেমেন্ট দিয়ে পাসপোর্টের কপি জমা দিলে তাদের নাম বিএমইটি ডাটাবেজে নামের তালিকা হবে অথবা আমি প্রবাসী অ্যাপে তারা নিজেরা নিজেরাই নাম নিবন্ধন করতে পারবে। ডাটাবেজে নাম নিবন্ধিত হওয়ার পর অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সুরক্ষা অ্যাপে ভ্যাকসিনের জন্য আবেদন করতে পাবে। তিনি আরো বলেন, মানুষের কষ্ট লাগবের জন্য উপজেলা নির্বাহি অফিসাররা তাদের স্ব স্ব উপজেলায় ফরম গ্রহণে ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। সেটা কিভাবে কোনো নিয়মে করছে এটা উনারা আমাদের থেকে ভালো জানেন। এ ব্যাপারে আমাদের উপর থেকে কোনো নিদের্শনা নেই।

 


সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবরীনা রহমান বলেন, প্রবাসীদের বলা হয়েছে উপজেলা পরিষদ বরাবর অ্যাপ্লিকেশন করতে। তারা প্রতিদিন আমাদের এখানে অ্যাপ্লিকেশন জমা দিচ্ছে। তাও রিটেন অ্যাপ্লিকেশন। রিটেন অ্যাপ্লিকেশন আমরা একসাথে ডিসি অফিস পাঠিয়ে দিচ্ছি। ডিসি অফিস থেকে ভ্যাকসিনেশনের ব্যবস্থা করবে। উপজেলায় রেজিস্ট্রেশন করে জনশক্তি অফিসে কোন রেজিস্ট্রেশন হয়নি বলছেন প্রবাসীরা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি জানিনা, আমি দেখছি। এ বিষয়ে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, আমার জানা মতে উপজেলায় এই রেজিস্ট্রেশন হওয়ার কথা না। প্রবাসীরা যাতে সহজে সেবা পায় সেজন্য বলা হয়েছে। বড়লেখায় আমরা শুরু করেছি বাসায় বাসায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করবে।

প্রতিবেদক

সর্বশেষ - আইন আদালত