1. ayanabirbd@gmail.com : deshadmin :
  2. hr.dailydeshh@gmail.com : Daily Desh : Daily Desh
  3. enahidreza@gmail.com : sportsdesk : sports desk
  4. newsdesk.desh@gmail.com : Feroz Shahrier : Feroz Shahrier
মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৫:৪৬ অপরাহ্ন

ঘরে ঘরে মৃত্যুর ফাঁদ, ভয়ংকর বেলুন !

রাসেল আহমেদ, রূপগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট : শনিবার, ১৩ মার্চ, ২০২১

কারো ঘরে লাল পলিথিনের বেলুন। কারো ঘরে হলুদ বেলুন। আবার কারো ঘরে নীল বেলুন। কারো ঘরের খাটের নীচে বেলুন। কারো ঘরের মাঁচার উপড়ে বেলুন। কারো গোয়াল ঘরে বেলুন। গ্রামের পর গ্রাম ঘরে ঘরে বেলুন। যেনো গ্রামগুলো বেলুনের গ্রাম। তবে এসব কিন্তু খেলনা বেলুন কিংবা জন্মদিনের বেলুন নয়। এসব বেলুন গ্যাস সঞ্চয় করে রাখার জন্য পলিথিনের তৈরি ভয়ংকর বেলুন।


এসব বেলুন বিস্ফোরণে ভস্মীভূত হতে পারে গ্রামের পর গ্রাম। তবুও থেমে নেই বেলুন ব্যবহারের। প্রতিনিয়তই বাড়ছে বেলুন বোমা ব্যবহারকারীর সংখ্যা। নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের প্রায় ১৫ টি গ্রামে ভয়ংকর বেলুনে চলছে রান্নাবান্নার কাজ। সোনারগাঁও তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানী লিমিটেড কর্তৃপক্ষ ঝূঁকিপূর্ণ এসব বেলুন বোমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে তিতাস কর্তৃপক্ষ বলছে তারা এসব ব্যাপারে কিছুই জানেন না।


সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, রূপগঞ্জের কায়েতপাড়া ইউনিয়নে ২০১৫ সালের প্রথম দিকে গ্যাস লাইন সরবরাহ করা হয়। গ্যাংস সংকটের অজুহাতে কায়েতপাড়া ইউনিয়নের খামারপাড়া, তালাশকুর, ছনেরটেক, দক্ষিণপাড়া, নগরপাড়া, কামশাইর, উত্তরপাড়া, নয়ামাটি, দেইলপাড়া, কায়েতপাড়াসহ প্রায় ১৫ টি গ্রামের ঘরে ঘরে বেলুন গ্যাস তৈরি করা হয়েছে।

গ্যাস বেলুন ব্যবহারকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পলিথিনে দিয়ে গ্যাস বেলুন তৈরি করতে প্রায় ২ হাজার টাকা খরচ হয়। সারারাত এসব বেলুনে গ্যাস তুলে গ্যাস সঞ্চয় করা হয়। পরে সময় বুঝে খরচ করা হয়। সরেজমিনে উত্তরপাড়া এলাকার জীবন চন্দ্র সরকারের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়ির টয়লেটের উপড়ে লাল পলিথিনের বেলুন। তিতাস গ্যাসের পাইপ লাইন থেকে পাইপের মাধ্যমে পলিথিনে গ্যাস উঠানো হচ্ছে। পলিথিন থেকে আরেকটি পাইপ চুলায় দেওয়া আছে। পরে সারাদিন চালানো হয় রান্নার কাজ।

কথা হয় জীবন চন্দ্রের সঙ্গে। তিনি বলেন, গ্যাস থাহেনা বাপু। হের লেইগ্যা গ্যাস বেলুন নিছি। সারা রাইত গ্যাস তুইলা রাহি। দিনে রান্ধন-বান্ধন করি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এত্তো আইন-কানুন জানিনা। দরকার পড়ছে, নিছি। খামারপাড়া এলাকার হাবিবুর রহমানের গোয়ালশালায় গিয়ে দেখা গেছে, মাচার উপড়ে হলুদ পলিথিনের গ্যাস বেলুন। কথা হয় হাবিবুর রহমানের সঙ্গে। তিনি বলেন, হগতে নিছে, আমিও নিছি। এভাবে গ্যাস নেওয়া ঝূঁকিপূর্ণ জানেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এইডা আর কি অইবো। গ্যাসতো উইড়া (উড়ে} যায়গা। কিছু অইবোনা।
সোনারগাঁও কার্যালয়ের (ব্যবস্থাপক} মেজবাহউর রহমান বলেন, এমন কথা আজ নতুন শুনলাম। বড়ই অদ্ভুদ লাগলো। এভাবে গ্যাস সঞ্চয় করে রাখা খুবই ঝূঁকিপূর্ণ। পলিথিন গলে গেলে কিংবা ছিদ্র হয়ে গেলে আগুন লেগে যেতে পারে। পুড়ে যেতে পারে বাড়িঘর। খোঁজ নিয়ে শীঘ্রই ব্যবস্থা নিচ্ছি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ নুসরাত জাহান বলেন, এটা কিভাবে সম্ভব? একেতো বড় অন্যায়। এরপর র্ঝূঁকি। আমরা বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবো।

@desh.click এর অনলাইন সাইটে প্রকাশিত কোন কন্টেন্ট, খবর, ভিডিও কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

@desh.click এর অনলাইন সাইটে প্রকাশিত কোন কন্টেন্ট, খবর, ভিডিও কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৭৮০,৮৫৭
সুস্থ
৭২৩,০৯৪
মৃত্যু
১২,১৮১
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৬২,৮২৩,২৩৭
সুস্থ
৯৯,০৩৭,২৩৬
মৃত্যু
৩,৩৭৬,৯২২

স্বত্ব @২০২১ দেশ

সাইট ডিজাইনঃ টিম দেশ