1. ayanabirbd@gmail.com : deshadmin :
  2. hr.dailydeshh@gmail.com : Daily Desh : Daily Desh
  3. enahidreza@gmail.com : NAHID REZA : NAHID REZA
রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন

ফিরে দেখা ।। ২০২০

শিক্ষায় তালাঃ প্রশ্ন ছিল, কতদিন?

মারুফা মোহসেনা
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০

মহামারী করোনা সংক্রমণের কারণে বছরজুড়ে বন্ধ ছিল দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শ্রেণিকক্ষের পাঠদান এবং পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। আনুষ্ঠানিক শিক্ষার বিকল্প হিসেবে সরকার দূরশিখন পদ্ধতি চালু রেখেছে। পরীক্ষা ছাড়াই পরের ক্লাসে উত্তীর্ণ হয়েছে প্রাক-প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীরা। বিকল্প পন্থায় মূল্যায়ন করা হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের। সেশনজটে পড়েছেন কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।


বিশেষ বিবেচনায় আগস্ট মাস থেকে কওমি মাদ্রাসা খোলা হয়েছে। ইংরেজি মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ক্লাস না হলেও অনুষ্ঠিত হয়েছে পরীক্ষা। করোনা পরিস্থিতির কারণে মানবিক বিবেচনায় সরকার দেশের বেসরকারি নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের আর্থিক প্রণোদনা প্রদান করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনলাইন পাঠগ্রহণের সুবিধার্থে কমমূল্যে ইন্টারনেট পাওয়ার ব্যবস্থা নিয়েছে। দেশের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব শিক্ষার্থীর স্মার্টফোন কেনার সামর্থ্য নেই, তাদের জন্য ফোন কেনার অর্থ ঋণ সুবিধা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন।

তবে সরকারি কোনো সহায়তা পায়নি বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো। এসব প্রতিষ্ঠানের প্রায় দেড় লাখ শিক্ষক-কর্মচারী করোনাকালে আর্থিক সংকটে দিনযাপন করছেন।

করোনার মধ্যে উচ্চশিক্ষায় ভর্তির জন্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছভর্তি পদ্ধতি চালুর জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন আপ্রাণ চেষ্টা করেও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে রাজি করাতে পারেনি। তবে এর বাহিরে প্রায় ৩৯ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এই পদ্ধতিতে ভর্তি নিতে সম্মতি জানিয়েছে।

বছর শেষে নতুন শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তি পদ্ধতিতে ভর্তি নিয়ে সমালোচনায় পড়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বিভিন্ন শ্রেণিতে ভর্তির জন্য বয়স নির্ধারিত করে দেওয়ায় ভর্তি হতে পারেনি লক্ষাধিক শিক্ষার্থী। বিষয়টি উচ্চ আদালত পর্যন্ত যায়। স্থগিত করতে বাধ্য হয় ভর্তির লটারি অনুষ্ঠানের।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কয়েক সপ্তাহ ধরে বিনামূল্যের পাঠ্যবই শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণের উদ্যোগ নেয় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ গবেষক ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. মঞ্জুর আহমেদ দেশ’কে বলেন, কোভিড-১৯ বৈশ্বিক মহামারীতে অন্যান্য খাতের মতো শিক্ষা খাতে বড় ধরনের ক্ষতি হয়। অন্য খাতের পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হলেও শিক্ষার ক্ষতির রেশ থাকবে দীর্ঘদিন।

বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা করোনা সংক্রমণের মধ্যেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রায় সব খাতই কিছু না কিছু সচল করা হয়েছে। একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই বন্ধ রাখছে সরকার। তবে এটি আর দীর্ঘ করা সমীচীন নয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলাও দরকার। নতুন বছরের প্রথম মাসে যেহেতু অর্ধেক পর্যন্ত সরকার ছুটি ঘোষণা করেছে। লম্বা ছুটিতে শিক্ষার অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে।

এখনই আমাদের পরিকল্পনা করতে হবে যে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা যায় কীভাবে? শুধু একটি অফিস আদেশ জারি করেই দায়িত্ব শেষ করলে হবে না। স্থানীয় পর্যায়ে পর্যন্ত এর বাস্তবায়ন হচ্ছে কিনা, তা মনিটরিং দরকার। উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত ‘শিক্ষা পুনরুদ্ধার কমিটি’ গঠন করা যেতে পারে।

এ কমিটিতে স্থানীয় সরকার, শিক্ষা প্রশাসন, স্বাস্থ্য, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা প্রতিনিধি থাকতে পারে। এরা প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় স্বাস্থ্যবিধি মানতে সহযোগিতা করবে। ছাত্র-শিক্ষকদের সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। এ বিষয়ে অভিভাবকদের আশ্বস্ত করতে হবে।

প্রতিদিন ক্লাস না রেখে বিরতি দিয়ে একই ক্লাসের শিক্ষার্থীদের ভাগ করে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে পাঠদান দেওয়া। শিক্ষা পুনরুদ্ধারের পরিকল্পনায় সরকারের ব্যয় করতে হবে।

@desh.click এর অনলাইন সাইটে প্রকাশিত কোন কন্টেন্ট, খবর, ভিডিও কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

@desh.click এর অনলাইন সাইটে প্রকাশিত কোন কন্টেন্ট, খবর, ভিডিও কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৫২৭,০৬৩
সুস্থ
৪৭১,৭৫৬
মৃত্যু
৭,৮৮৩
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
৯৩,১৩৬,৬২০
সুস্থ
৫১,০৬৫,১৪৪
মৃত্যু
১,৯৯০,৮৪০

নামাজের সময়সূচীঃ

    Dhaka, Bangladesh
    রবিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৫:২৪
    সূর্যোদয়ভোর ৬:৪৩
    যোহরদুপুর ১২:০৮
    আছরবিকাল ৩:১৩
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৩৪
    এশা রাত ৬:৫৪

স্বত্ব @২০২০ দেশ

সাইট ডিজাইনঃ টিম দেশ