ঢাকাসোমবার , ৫ জুলাই ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন আদালত
  4. আবোল-তাবোল
  5. উদ্যোক্তা
  6. উপসম্পাদকীয়
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. কলাম
  9. ক্যারিয়ার
  10. খেলার মাঠ
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ পরিবার
  15. দেশ ভাবনা

৩’শ মিটার সড়কে শতাধিক গর্ত!

এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান প্রতিনিধি
জুলাই ৫, ২০২১ ৪:১৮ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম রাউজানের মাওলানা দোস্ত মুহাম্মদ সড়কে ৩শ মিটার এলাকায় শতাধিক গর্ত আর গর্ত।সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে দোস্ত মুহাম্মদ সড়কের উত্তরসর্তা দরগাহ বাজার গেইট থেকে রাউজান সীমান্ত তোতাগাজীর বাড়ী পর্যন্ত শুধু গর্ত আর গর্ত।


 

 

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে বড় বড় গর্তগুলোর কারনে প্রতিনিয়ত যাত্রীসাধারন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সকল গর্তগুলো পানিতে ভরপূর। চলার পথে গাড়ির ঝাঁকুনীতে অনেকে সমস্যায় পড়তে হয়। সে সড়কের অংশ বিশেষ এ জায়গা দিয়ে পায়ে হাটাও দায় পড়ে। অনেক সময় গাড়ির চাকার চাপে কাঁদাযুক্ত পানি পথ চারীদের গায়ে এমনকি পরিধানের কাপড়ে পড়ে কাপড় নষ্ট করে হয়ে যায়। গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি রাউজানেরর উত্তরসর্তা থেকে ফটিকছড়ির সাথে যুক্ত হয়েছে। তোতাগাজীর বাড়ীর পশ্চিম পাশ থেকে সড়কটি হাজী মোশরফ আলী সড়ক হিসাবে রেকটেড। দরগাহবাজার থেকে তোতাগাজীর বাড়ী পর্যন্ত এ সড়কের অংশে ফটিকছড়ির দক্ষিণ ধর্মপুর এলাকাসহ উত্তরসর্তার শত শত মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করে বিভিন্ন জায়গাতে যান। গর্তগুলোর এমন অবস্থা যেন প্রতিটি মিনি পুকুর।

 

 

হযরত আবদুল কাদের জিলানী (রঃ) কল্যান ট্রাষ্টের সভাপতি ও রাজনীতিক আলহাজ্জ মাহবুবুল আলম বলেন, সামান্যতম এ সড়কের দুর্ভোগ যেন শেষ হচ্ছে না। প্রতিনিয়ত মানুষ কষ্ট পাচ্ছে। বৃষ্টির কারণে ছোট ছোট গর্তগুলো অনেক বড় বড় গর্তে রূপ নিয়েছে। গাড়ির ভারে প্রতিদিন গর্তগুলো বড় হচ্ছে। তিনি জানান সর্তাব্রিজ থেকে দোস্ত মুহাম্মদ সড়কের সিরিন্নার পুল পর্যন্ত রিপায়রিং কাজ করার সময় দরগাহ বাজারের অংশটি একই টেন্ডারে হয়ে যেত। কিন্তু গতবার রিপায়রিং করার সময় এ অংশটি বাদ দিয়ে টেন্ডার হওয়ায় এ অংশের ৩শ মিটারের কাজটি আর হয়নি। তিনি জানান কয়েকমাস আগে জেলা প্রকৌশলী আরেকটি সড়ক ভিজিট করতে এসে এমপি সাহেবের নির্দেশনায় এ অংশটিও দেখে গেছেন।

 

এদিকে দক্ষিণ ধর্মপুর তরুন সংঘের সভাপতি আলহাজ্জ মাওলানা শহিদুল্লাহ সড়ক দিয়ে পায়ে হেটে যাবার পথে বলেন আমরা ফটিকছড়ির বাসিন্দা হলেও প্রতিদিন আমরা সড়কটি দিয়ে রাউজানে যাতায়াত করে থাকি। তিনি জানান, দক্ষিণ ফটিকছড়ির অধিকাংশ মানুষ এসড়ক ব্যবহার করে উত্তরসর্তা সহ রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করেন, তেমনি রাউজানের হলদিয়া, আমিরহাট, এয়াছিন্নগর, ডাবুয়া, নোয়াজিষপুরের অনেক মানুষ এ পথ ব্যবহার করে তকিরহাট, জাফতনগর, আবদুল্লাহপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় যাওয়া আসা করেন। তিনি বলেন রাউজানের অনেক কাজ করছেন প্রতিটি এলাকায়।

 

সড়কটি প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী আবুল কালাম বলেন অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সড়কটি দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হবে। তিনি বলেন, একবার আমি এসড়ক দেখেছি। অনেক গর্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে সড়কের পানি নিস্কাশন রোধ করতে সড়কটিতে (আর সি.সি) ঢালাই করে দুর্ভোগ লাঘবে এগিয়ে আসবে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ সে দাবী এলাকাবাসীর।

সর্বশেষ - জাতীয়