ঢাকাশনিবার , ২১ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য
দুই ইউপি চেয়ারম্যানের যৌথ প্রচেষ্টা

সাতকানিয়ায় আবাদের আওতায় ৫শ একর পরিত্যাক্ত জমি


দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার কুড়ালিয়া পাড়া-হিলমিলি খালটি ময়লা আবর্জনায় ভরাট হয়ে থাকায় দীর্ঘ ১৫ বছর থেকেই পরিত্যাক্ত হয়ে যায় এওচিয়া ও আমিলাইষ ইউনিয়নের প্রায় ৫শ একর আবাদী জমি। ফলে এই ৫শ একর জমিতে কোন কিছুই চাষ করতে পারতোনা মালিকরা। বিষয়টি নজরে আসার পর এওচিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক ও আমিলাইষ ইউপি চেয়ারম্যান এস এম হানিফ।


গত শুক্রবার সকাল থেকে দুই শতাধিক শ্রমিক নিয়ে ঐ ভরাট হয়ে যাওয়া খালটি সংস্কার কাজ শুরু করেন। খালটি পুরো সংস্কার করে পানি চলাচলের ব্যবস্থা করায় খালের দুই পাশের দীর্ঘ ১৫ বছর থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় থাকা অন্তত ৫শ একর জমি আবাদের আওতায় আসলো। আমিলাইষ ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। প্রায় ৫শ একর জমি চাষের আওতায় আসার কারনে সাতকানিয়ায় চাষের পরিধি বেড়ে খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে সহায়তা করবে। আর এতে করে বেজায় খুশি কৃষককুল।


সূত্রে প্রকাশ, এওচিয়া ইউনিয়নের কুড়ালিয়া পাড়া আর আমিলাইষ ইউনিয়নের হিলমিলি। এই দুই ইউনিয়নের মধ্যেবর্তি বিশাল ফসলের মাঠের মাঝখান দিয়ে বেয়ে গেছে কুড়ালিয়া পাড়া-হিলমিলি খালটি। এই খালটির কারনে পানি নিস্কাশন সুবিদা ও খালের পানি ফসলে ব্যবহারের সুবিদা থাকায় বিশাল বিলজুড়ে ধানসহ বিভিন্ন ফসলের চাষ করা হতো। কিন্তু দীর্ঘ দেড় যুগ ধরে এই খালটি সংস্কার করা না হওয়ায় বছরের পর পর বছর ময়লা আবর্জনা জমতে জমতে এক পর্যায়ে পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা আর শুস্ক মৌসুমে পানি সংকটের কারনে অন্তত ৫শ একর জমি অনাবাদি হয়ে পড়ে। সবিশেষ এওচিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক ও আমিলাইষ ইউপি চেয়ারম্যান এস এম হানিফ যৌথ উদ্যেগ নিয়ে খালটি সংস্কার করে দেওয়ায় বিশাল এলাকা চাষের আওতায় আসলো। এনিয়ে ধারুন খুশি কৃষকরা। কৃষক মোহাম্মদ সোলাইমান বলেন, আমার অনেক জমি এই বিলে অনাবাদি ছিল দীর্ঘদিন। এখন এই খালটি সংস্কার করায় আবার নতুন করে এই জমিতে চাষাবাদ করতে পারব। উদ্যেগ নেওয়া জনপ্রতিনিধিদের ধন্যবাদ জানান তিনি।


খাল খননের উদ্যেগে নেয়া চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক বলেন, কুড়ালিয়া পাড়া-হিলমিলি খালটি দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে পানি নিস্কাশন হতে না পারায় কুড়ালিয়া পাড়া-হিলমিলি খালটি দীর্ঘ দিন অযতেœ আর অবহেলায় পড়ে থাকার কারনে শত শত কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ। সবিশেষ আমি ও আমিলাইষ ইউপি চেয়ারম্যান এস এম হানিফ যৌথ উদ্যেগ নিয়ে খাল সংস্কার করেছি। এখন ওই বিলে চাষাবাদ হবে ইনশাআল্লাহ।


খাল খননের উদ্যেগটি প্রশংসনীয় উল্লেখ করে সাতকানিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার প্রতাপ চন্দ্র রায় বলেন, এই খালটি সংস্কার করার কারনে দীর্ঘদিন পরিত্যাক্ত হয়ে পড়া অন্তত ৫শ একর জমিতে নতুন করে আবাদ হবে বলে জানতে পেরেছি।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া