ঢাকামঙ্গলবার , ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য
আমতলীতে চলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ধোয়া মোছার কাজ

শিক্ষার্থীদের মাঝে ফিরে এসেছে প্রানচাঞ্চল্য

খান মতিয়ার রহমান, আমতলী প্রতিনিধি
সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১ ৪:৫৭ অপরাহ্ণ


করোনার সংক্রমন রোধে সরকার দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষনা করে। প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকার পরে আগামী ১২ সেপ্টের দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষনা দেয় সরকার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষনায় বরগুনার আমতলী উপজেলায় শুরু হয়েছে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ধোয়া মোছা ও পরিস্কার করার কাজ।


শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সংবাদে নড়েচড়ে বসেছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। প্রানচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইবতেদায়ী মাদ্রাসা এবং ৬ষ্ঠ শ্রেণী থেকে ডিগ্রীতে অধ্যায়নরত প্রায় অর্ধলক্ষাধিক নবীন শিক্ষার্থীদের মাঝে।

উপজেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদরসহ প্রত্যান্ত অঞ্চলের ১৫৩টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৪৯টি বেসরকারী প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেন স্কুল, ১৪টি জুনিয়র, ২৬টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২২টি দাখিল, ৩টি আলিম, ৪টি ফাজিল মাদ্রাসা এবং ৭টি কলেজ রয়েছে। মহামারী করোনাভাইরাস সংক্রমন রোধে দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা এক প্রকার ঘরমুখো হয়ে পড়ে। এতে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মারাত্বক ক্ষতি হয়। অনেক শিক্ষার্থী অকালে ঝড়ে পড়ে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সংবাদে উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ইবতেদায়ী ২৮,৪৫৩ এবং ৬ষ্ঠ শ্রেণী থেকে ডিগ্রী পর্যন্ত ২৮,৬৮৫ নবীন শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রানচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে।

সরেজমিনে আমতলী পৌর শহরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠাগুলো ঘুরে দেখা যায়, দীর্ঘদিন প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকায় ক্লাসরুমের চেয়ার, টেবিল, বেঞ্চগুলো ময়লা ও ধূলাবালির স্তুপজমে একাকার হয়ে গেছে। সেগুলো স্ব-স্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে পরিস্কার- পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। একাধিক সচেতন অভিভাবক ও সূধী সমাজ শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিন্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে। তারা আরো বলেন, কোন অবস্থাতেই যেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো যেন আর বন্ধ না করা হয়।

আমতলী বন্দর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর শিক্ষার্থী মোঃ আসওয়াদ জামান মাহিদ বলেন, কি মজা আমি আবার লেখাপড়া শিখতে স্কুলে যাবো। বন্ধুদের সাথে খেলা করবো। আমতলী সরকারী একে হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ বজলুর রহমান বলেন, স্কুল ধোয়া মোছার কাজ চলছে, সরকারের নির্দেশনা অনুসারে যথানিয়মে পাঠদান শুরু করা হবে।

উপজেলার চুনাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মাহবুবুল আলম মুঠোফোনে বলেন, সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক শ্রেনী কক্ষে পাঠদান শুরু করা হবে। সে জন্য বিদ্যালয়ের ক্লাশ রুমগুলো পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ চলছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মজিবুর রহমান বলেন, উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো পরিস্কার- পরিচ্ছন্নতা করে ক্লাশ রুমগুলো পাঠদানের উপযোগী করার কাজ চলমান আছে। যা আমিসহ আমার অফিসের সহকারীরা প্রতিটি বিদ্যালয় ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন করছেন। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ জিয়াউল হক মিলন বলেন, উপজেলার সকল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, জুনিয়র স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজ পাঠদানের উপযোগী করার জন্য প্রতিষ্ঠান প্রধানদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বিদ্যালয়গুলোতে ধোয়া মোছার কাজ পুরুদমে চলতেছে।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া

আপনার জন্য নির্বাচিত

ভোজ্যতেলের দাম আরেক দফা বাড়ল

সোনারগাঁয়ে সরকারী হালট দখল করে বালু ভরাটের অভিযোগে অর্থদন্ড

আ.লীগের ত্রিমুখী সংঘর্ষের মধ্যে অস্ত্রধারীর ভিডিও ভাইরাল

পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্যোগে রচনা প্রতিযোগিতা

সোনালী ব্যাংক সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে খাদ্য বিতরন

চকবাজার ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে ২৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ

বিএনপি’র অবাধ মিথ্যাচার ফ্যাসিবাদি মানসিকতার অংশ : ওবায়দুল কাদের

মেসিময় কোপায় সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা

পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ২ শিশুর মৃত্যু

আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক্স-রে মেশিন নষ্ট, ভোগান্তিতে রোগী

চন্দনাইশে কোটি টাকার ইয়াবাসহ ৩ জন গ্রেফতার