ঢাকারবিবার , ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

বাগেরহাটে দেড় সহস্রাধিক স্কুল খুলেছে

মোঃ কামরুজ্জামান, বাগেরহাট প্রতিনিধি
সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১ ১২:৩৫ অপরাহ্ণ


করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর বাগেরহাটের প্রায় দেড় সহস্রাধিক স্কুল খুলেছে।


জেলার সব স্কুলগুলোতে শিক্ষার পরিবেশ তৈরি করতে সুসজ্জ্বিত করা হয়েছে। স্কুলগুলোর গেটে তোরণ তৈরি করা হয়েছে। দীর্ঘদিন পর স্কুল খোলায় শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘদিন পর স্কুল খোলায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা দারুণ খুশি। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।


রোববার সকালে স্কুল খোলার প্রথম দিনে বাগেরহাট শহরের সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে সকাল আটটায় চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির ক্লাস শুরু হয়। শিক্ষার্থীরা বাড়ি থেকে মুখে মাস্ক পরে স্কুল গেটে আসলে স্কুল কর্তৃপক্ষ থার্মোমিটার দিয়ে প্রত্যেক শিশুর শরীরের তাপমাত্রা মেপে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করায়। পরে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে শিক্ষার্থীরা তাদের ক্লাসে শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে বসে। জেলার সকল স্কুলে সকাল দশটা থেকে ক্লাস শুরু করে কর্তৃপক্ষ।


মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলগুলোতে পঞ্চম শ্রেণি, ২০২১ ও ২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী ও নতুন দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রতিদিনই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাস হবে। আর দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ, ষষ্ঠ্য, সপ্তম, অষ্টম ও নবম শ্রেণির সপ্তাহে একদিন ক্লাস করার নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে পঞ্চম শ্রেণির প্রতিদিন ক্লাস হবে। আর দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির সপ্তাহে একদিন ক্লাস হবে। তবে প্রাথমিকের শিশু শ্রেণির শিক্ষার্থীদের আপাতত স্কুলে না আসতে বলা হয়েছে।


শিক্ষার্থীরা বলছে, মুখে মাস্ক না পরলে স্কুলে ঢোকা যাবে না। আর দূরে দূরে থাকতে হবে। অনেকদিন স্কুল বন্ধ ছিল, বাসায় থাকতে থাকতে বোর হয়ে যাচ্ছিলাম। স্কুলে আসতে পেরে ভালই লাগতেছে।


সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক গাজী সালাউদ্দিন শিক্ষকরা বলেন, স্বাস্থ্যবিধিটা অবশ্যই মানতে হবে। সেক্ষেত্রে স্কুলে ঢোকার সময় লাইনে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে শিক্ষার্থীদের শরীরের তাপমাত্রা মাপা হচ্ছে, ক্লাসে এক বেঞ্চে দুজন করে শিক্ষার্থীরা বসবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাতে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারে সেই ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি।


বাগেরহাট সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক চিত্তরঞ্জন পাল বলেন, করোনা সংক্রমণের কারনে স্কুল বন্ধ ছিল। শিক্ষার্থীরা ঘরে বন্দি অবস্থায় ছিল। দীর্ঘ দেড় বছর পর স্কুল খুলেছে। স্কুলের পাঠদানের পরিবেশ তৈরি করেছি। দীর্ঘদিন পর স্কুল খোলায় শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়। খোলার প্রথম দিনে চতুর্থ, পঞ্চম, এসএসসি পরীক্ষার্থীদের পাঠদান দেয়া হচ্ছে। আর বাকি শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে একদিন করে ক্লাস করবে।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া

আপনার জন্য নির্বাচিত