ঢাকামঙ্গলবার , ৩১ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

প্রেম, প্রগতি ও বিদ্রোহের কবি অমৃতা প্রীতম

দেশ ডেস্ক
আগস্ট ৩১, ২০২১ ১২:১৫ অপরাহ্ণ


অমৃতা প্রীতম যাঁকে প্রথম উল্লেখযোগ্য পাঞ্জাবি মহিলা কবি, ঔপন্যাসিক ও প্রবন্ধকার হিসেবে গণ্য করা হয়ে থাকে। বিংশ শতাব্দীর এই কবি ভারত-পাকিস্তানের সীমান্তের উভয় দিকের মানুষেরই প্রিয়পাত্র ছিলেন।


আজকের এই দিনে তিনি ১৯১৯ সালের আগস্ট ৩১ ব্রিটিশ ভারতের পাঞ্জাবের গুজরানওয়ালা নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। এগারো বছর বয়সে তাঁর মাতার মৃত্যু হলে তিনি ও তাঁর পিতা লাহোর শহরে বসবাস শুরু করেন। মাতার মৃত্যুর পরে একাকীত্বের কারণে তিনি লিখতে ও শুরু করেন। ১৯৩৬ খ্রিস্টাব্দে তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ “অমৃত লেহরেঁ” প্রকাশিত হয়। এই বছর তিনি প্রীতম সিং নামক একজন সম্পাদককে বিবাহ করেন ও স্বামীর নামে নিজের নাম অমৃতা কউর পরিবর্তন করে অমৃতা প্রীতম রাখেন। ভারতের স্বাধীনতার পরে তিনি লাহোর থেকে ভারতে চলে আসেন। ১৯৬০ খ্রিস্টাব্দে তাঁর বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে। এই সময় কবি সাহির লুধিয়ানভির সঙ্গে তাঁর প্রণয় ঘটে, কিন্তু পরে কণ্ঠশিল্পী সুধা মালহোত্রার সঙ্গে সাহিরের প্রেম গড়ে উঠলে অমৃতা লেখক ইমরোজের সান্নিধ্যে জীবনের শেষ চল্লিশ বছর অতিবাহিত করেন।

রচনাবলি:-
তিনি “অজ্জ আখাঁ ওয়ারিস শাহ নূ” নামক একটি বিষাদধর্মী কবিতা রচনা করেন, যেখানে ভারতের বিভক্তির সময়কার বিপর্যয়ের প্রতি তাঁর ক্ষোভ ও রাগের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। ঔপন্যাসিক হিসেবে তাঁর সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য অবদান হল “পিঞ্জর” নামক একটি বিখ্যাত উপন্যাস, যেখানে তিনি ‘পারো’ নামক একটি স্মরণীয় চরিত্র সৃষ্টি করেন, যাকে তিনি নারীদের বিরুদ্ধে অত্যাচার, মানবতা লঙ্ঘন এবং অস্তিত্ববাদের প্রতি সমর্পণের বিরুদ্ধে একটি মূর্ত প্রতীক হিসেবে গড়ে তোলেন। ২০০৩ খ্রিস্টাব্দে এই উপন্যাস থেকে “পিঞ্জর” নামক একটি হিন্দি চলচ্চিত্র নির্মিত হয়। ছয় দশকের দীর্ঘ সময় ধরে তিনি অজস্র উপন্যাস, আত্মজীবনী, ছোটোগল্প, কবিতা সংকলন, সাহিত্য সাময়িকী, কল্পকাহিনী, প্রবন্ধ, লোক সঙ্গীত প্রভৃতি বিভিন্ন বিষয়ে প্রায় দুইশোটি গ্রন্থ রচনা করেন, যা বিভিন্ন ভারতীয় ও বিদেশী ভাষায় অনূদিত হয়।

পুরস্কার ও সম্মননা:-
** ১৯৫৬ খ্রিস্টাব্দে তিনি তাঁর রচিত “সুনেহে” নামক দীর্ঘ কবিতার জন্য সাহিত্য অকাদেমি পুরস্কার লাভ করেন।
** ১৯৮২ খ্রিস্টাব্দে তিনি তাঁর “কাগজ তে ক্যানভাস” নামক উপন্যাসের জন্য জ্ঞানপীঠ পুরস্কার জয় করেন।
** ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দে তিনি পদ্মশ্রী,
** ২০০৪ খ্রিস্টাব্দে পদ্মবিভূষণ ও সাহিত্য অকাদেমি ফেলোশিপ লাভ করেন।

প্রতিবেদক

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া