ঢাকাশনিবার , ২৪ জুলাই ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

পশুরহাটের বর্জ্যে মরে ভেসে উঠেছে দিঘির মাছ

কাউছার আহমেদ রিয়ন, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি
জুলাই ২৪, ২০২১ ১২:৫৯ অপরাহ্ণ


মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সাগর দিঘিতে গত ২ দিন যাবত বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মরে ভেসে উঠছে। দিঘির পানিতে ভেসে উঠা মাছ পচে গন্ধ বের হয়েছে। আশে পাশে বাসা বাড়িতে থাকা মানুষের জীবনযাপন কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে।



পৌরসভার সাগর দিঘীর পাড়ে কোরবানির পশুর হাটের বর্জ্য মেশার পর সব মাছ মরে ভেসে উঠছে। পৌর শহরের সাগরদিঘিতে এ ঘটনা ঘটেছে, বুধবার (২১ জুলাই) ঈদের দিন থেকে হাতে গোনা মাছ ভেসে উঠতে থাকলেও শুক্রবার (২৩ জুলাই) পুরো দিঘিই মরা মাছে ভরে যায়।


জানা যায় শ্রীমঙ্গল পৌরসভা থেকে ইজারা নিয়ে এই দিঘিতে মিশ্রত মাছ চাষ করছিলেন হাজি আজিজুর রহমান নামের এক ইজারাদার।মাছ মরে যাওয়ায় প্রচুর ক্ষতি গ্রস্ত হয়ে পড়েন তিনি। শ্রমিক নিয়ে দিনভর কাজ করেও দিঘির পচা মাছ অপসারণ করা সম্ভব হয়নি।


সরেজমিনে শুক্রবার বিকেলে দেখা যায়, পুরো দিঘিতে মরা মাছের সয়লাব হয়ে পড়েছে,ভেসে উঠছে রুই, পাঙাশ সহ বড় বড় মাছ। দিঘির চারপাশের বসবাসরত এলাকার মানুষজনে মরা পচা মাছের দুর্গন্ধে থাকা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। নৌকা দিয়ে মরা মাছগুলো দিঘি থেকে উঠিয়ে পিকআপ ভ্যানে করে মাটিচাপা দিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।মোটর লাগিয়ে দিঘির পানিতে অক্সিজেনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এদিকে উৎসুক মানুষ দিঘির পানিতে মরা মাছ দেখার জন্য ভিড় জমাচ্ছে।


শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বিকুল চক্রবর্তী বলেন দিঘির পাশেই আমাদের উপজেলা প্রেসক্লাব সকাল থেকে দিঘি থেকে যে গন্ধ বের হচ্ছে, তাতে ক্লাবে বসতে আমাদের বেশ কষ্টদায়ক হয়ে পড়েছে । বাতাসে এই মরা মাছের গন্ধ চারপাশে ছড়িয়ে পড়ছে।


মরা মাছ সরানোর দায়িত্বে থাকা কর্মীরা বলেন, সকাল থেকে দুটি নৌকা দিয়ে মরা মাছ তুলছেন। ২ থেকে ৪ কেজি ওজনের মাছই বেশি। মাছগুলো পচে যাওয়ায় দিঘি থেকে ওঠাতে কষ্ট হচ্ছে। দিঘির মাছ দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা জুয়েল মিয়া বলেন,প্রায় ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ঈদের দিন থেকে মাছ মরে ভেসে উঠতে থাকে। ঈদের পর মাছগুলো ধরে বিক্রির পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু এর আগেই দুর্ঘটনাটি ঘটল।


উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. ফারাজুল কবির দৈনিক দেশকে বলেন, সাগরদিঘির পাশেই কোরবানির পশুর হাট বসেছিল। সেখানকার গরুর গোবর, মূত্র ও বর্জ্য পদার্থ বৃষ্টির পানিতে মিশে দিঘিতে পড়ার কারণে অক্সিজেনের সংকট দেখা দেয়। এ কারণে মাছ মরে ভেসে উঠেছে। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখে সেখানে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সব মরা মাছ তুলে সেখানের গ্যাস দূর করা হচ্ছে।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া