ঢাকাশুক্রবার , ২০ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ২ শিশুর মৃত্যু

মফস্বল সম্পাদক
আগস্ট ২০, ২০২১ ১০:১৩ অপরাহ্ণ


কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী চিলমারী, রামকৃষ্ণপুর, ফিলিপনগর ও মরিচা ইউনিয়নের পদ্ম নদীতে ভারত থেকে আসা পাহাড়ী ঢলের প্রভাবে নদীতে অস্বাভাবিক ভাবে পানি বৃদ্ধি পেয়ে রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারী ইউনিয়নের প্রায় ৪০টি গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্রাবিত হয়ে অসংখ্য মানুষ বন্যা কবলিত হয়েছে।



এসব এলাকার প্রায় ৮০ ভাগ বাড়ী ঘর বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। চরাঞ্চলের ধানসহ অন্যান্য ফসলাদী ও তলিয়ে গেছে। বুধবার চিলমারী ইউনিয়নের দক্ষিন খারিজা থাক গ্রামের সিদ্দিক মোল্লার পুত্র সিয়াম (৭) ও একই এলাকার জমাদানেরর শিশু কন্যা মনি (৭) বাড়ীর অঙ্গিনায় পনিতে ডুবে মারা গেছে বলে চিলমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ আহাম্মেদ নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান বন্যা কবলিত মানুষের মাঝে পর্যাপ্ত ত্রান সামগ্রী দেয়া জরুরী হয়ে পড়েছে। বন্যায় সবচেয়ে ক্ষতি গ্রাস্ত চিলমারী, রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন ছাড়াও ফিলিপনগর ও মরিচা ইউনিয়নের চরাঞ্চল। মরিচার হাট খোলা, ভুড়কা পাড়া, কোলদিয়াড় বৈরাগিরচর এলাকার নদী ভাঙ্গন অব্যহত রয়েছে। গত ৩ দিন পদ্মা নদীতে অস্বাভাবিক ভাবে নদীর পানি বেড়েছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল হান্নান চিলমারী ও রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে তালিকা প্রস্তুত করেছেন বলে জানিয়েছেন। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ইউনিয়নের এলাকাবাসীর জন্য ত্রান বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে।

প্রতিবেদক

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া