ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৯ আগস্ট ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

নির্যাতিত গৃহবধূ আদালতে সাক্ষ্য দিলেন


নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং সেই দৃশ্য ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার মামলায় আদালতে সাক্ষ্য দিলেন সেই নারী।



এসময় আদালতে মামলার আসামীরা উপস্থিত ছিলেন। আদালতে বাদীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামীদের ভিডিও ধারণ করতে গেলে গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর চড়াও হয় আসামীরা। এসময় তারা পুলিশের উপস্থিতিতে গণমাধ্যমর্কীদের উদ্দেশ্য করে গালমন্দ, মারধর ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

আজ বৃহস্পতিবার জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জয়নাল আবেদিন এর আদালতে নির্যাতিতার স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আদালতে বিচার কার্যের শুরুতেই প্রথম সাক্ষী হিসেবে স্বাক্ষ্য দেন মামলার বাদী ওই নারী। স্বাক্ষ্য গ্রহণের সময় আদালতে মামলার আসামীরা উপস্থিত ছিলেন। গত ২০২০ সালের ৪ অক্টোবর রাতে ওই নারী বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ থানায় ১৩জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ ৯ জনকে গ্রেফতার করলেও অপর ৪ জন এখনও পলাতক রয়েছে। মামলাটি বর্তমানে পিআইবি’তে তদন্তাদিন। ইতোমধ্যে মামলায় ১৩ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেছে পিবিআই। অভিযোপত্র দাখিলের পর এখন স্বাক্ষ্য গ্রহণ চলছে। এর মধ্য দিয়ে পূর্ণাঙ্গভাবে মামলার বিচার কার্য শুরু হলো।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি সিনিয়র অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ লাবলু, বাদী পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোল্লা হাবিবুর রসুল মামুন ও আসামী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন বাদল, অ্যাডভোকেট আব্দুল কাইয়ুম ও অ্যাডভোকেট আব্দুস শহিদ।

পাবলিক প্রসিকিউটর সিনিয়র অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ লাবলু বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মামলার পরবর্তী স্বাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ আগামী ২৩ আগস্ট ধার্য্য করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২০২০সালের ২সেপ্টেম্বর রাতে ওইনারীর আগের স্বামী তার সাথে দেখা করতে তার বাবার বাড়ী একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে এসে তাদের ঘরে ঢুকেন। বিষয়টি দেখতে পেয়ে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার হোসেন দেলু। রাত ১০টার দিকে দেলোয়ারের লোকজন ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে পর পুরুষের সাথে অনৈতিক কাজ ও তাদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর শুরু করেন। এক পর্যায়ে পিটিয়ে নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারন করে। গত ৪ অক্টোবর দুপুরে নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েল জেলায় তথা দেশ ব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া