ঢাকাবুধবার , ১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য
কিউইদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসের সর্বনিন্ম রানের লজ্জা

দুই ভায়রার গণপিটুনীতে কিউই বধ

শাহরিয়ার মুবিন
সেপ্টেম্বর ১, ২০২১ ৬:৪৭ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ বনাম নিউজিল্যান্ড, মিরপুর (টস- নিউজিল্যান্ড/ ব্যাটিং)

নিউজিল্যান্ড ৬০, ১৭ ওভার ( ল্যাথাম ১৮, নিকোলস ১৮, মোস্তাফিজুর ৩/১৩, নাসুম ২/৫, সাকিব ২/১০, সাইফ উদ্দিন ২/৭)


টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডের সাথে জয়টা অধরা ছিল বাংলাদেশের। সেটাও হয়ে গেল আজ। অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে যেখানে শেষ করেছিল বাংলাদেশ, আজ শুরু করল সেখান থেকেই। ৬১ রানের লক্ষ্য তাড়া করে ৭ উইকেটের সহজ জয়ে সিরিজের শুরুটা দারুণ হয়েছে বাংলাদেশের।

নিউজিল্যান্ডের সাথে এর আগের দশ বারের দেখায় একবারও জয় পায়নি বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে এবার দ্বিতীয় সারির নিউজিল্যান্ড দলের সাথে তাই বাংলাদেশের সামনে হাতছানি সেই রেকর্ড ভেঙে প্রথম জয় তুলে নেওয়ার। সেই লক্ষেই নিউজিল্যান্ডকে মাত্র ৬০ রানেই আটকে ফেলেছে বাংলাদেশ, যা মিরপুরে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ। বাংলাদেশের বিপক্ষে আগের ম্যাচেই অস্ট্রেলিয়ার গড়া টি-টোয়েন্টিতে সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড নতুন করে লিখেছে নিউজিল্যান্ড।

আজ বুধবার বিকেলে হোম অব ক্রিকেট খ্যাত মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টসে জিতে ১৬ দশমিক ৫ ওভারে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ৬০ রান তোলে টম ল্যাথামের দল। জবাবে সাকিব আল হাসানের ২৫ রানের ইনিংসে ভর করে পাঁচ ওভার বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় টাইগাররা। ব্যাট হাতে ১৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন মুশফিকুর রহিম ও ১৪ রানে অপরাজিত ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

স্বল্প রান মোকাবিলায় শুরুটা নড়বড়ে হয় বাংলাদেশের। মাত্র সাত রানে দুই ওপেনারকে হারায় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে এক রান করে ফেরেন নাঈম শেখ। পরের ওভারের পঞ্চম বলে ফেরেন লিটন দাস। তৃতীয় উইকেটের জুটিতে সাকিবের সঙ্গে ধাক্কা কাটিয়ে তোলেন মুশফিকুর রহিম। ৩০ রানের এই জুটি ভাঙেন রচীন রবীন্দ্র। ২৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন সাকিব।

শেষের দিকে নতুন ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে পাঁচ ওভার বাকি থাকতেই সাত উইকেটের সহজ জয়ের দেখা পায় স্বাগতিকরা। কিউইদের বিপক্ষে প্রথম কোনো টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জয়ের দেখা পেল বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে ১৬ রানে অপরাজিত মুশফিকের সঙ্গী রিয়াদ ছিলেন ১৪ রানে অপরাজিত।

টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে নামতে হলেও শুরুটা দারুণ হয় বাংলাদেশের। নতুন বল হাতে নিয়ে প্রথম ওভারেই উইকেট পান মাহেদি হাসান। গুড লেংথে পড়া স্লাইডার পড়তে না পেরে আগেই ব্যাট চালালে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে মাত্র ৪র্থ কিউই হিসেবে অভিষেকেই গোল্ডেন ডাকের স্বীকার হয়ে ফিরে যান রচীন রবিন্দ্র। তৃতীয় ওভারে আক্রমণে এসেই সাকিব ফেরান উইল ইয়াংকে। কিছুটা নিচু হয়ে আসা আর্ম বল পড়তে না পেরে স্টাম্পে বল ডেকে এনে ১১ বলে মাত্র ৫ রান করে ফেরেন তিনি।

এরপরে আসা কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম এই দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞদের একজন। তবে যে ভঙ্গিতে তিনি আউট হলেন তা কোনোভাবেই তার অভিজ্ঞতার সাথে যায় না। পুরো লেগ স্লাইডে ডিপ স্কোয়ার লেগে ছিলেন একজন ফিল্ডার। নাসুম আহমেদের নিরীহ একটি বল সুইপ করে সরাসরি সেখানে থাকা মোহাম্মদ নাইমের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি ১ রান করেই। ঐ ওভারেই নাসুমের আর্ম বলে জায়গা বানিয়ে খেলতে গিয়ে স্টাম্প খুইয়ে ফিরে যান টম ব্লান্ডেলও। মাত্র ৯ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসেন। উইকেটে এসে থিতু হতে অধিনায়ক টম ল্যাথাম ও হেনরি নিকোলস কিছুটা সময় নিলে পাওয়ারপ্লে শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ড তোলে মাত্র ১৮ রান।

জাতীয় দলের হয়ে এই ফরম্যাটে নিয়মিত না হলেও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বিপদ সামলে উঠছিলেন অভিজ্ঞ এই দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। তবে পুরো ইনিংসেই অবিবেচক ব্যাটিংয়ের ধারা অব্যাহত রেখে সাইফ উদ্দিনের বাউন্সারে ফাইন লেগে নাসুমের তালুবন্দি হয়ে ২৫ বলে ১৮ রান করে ফিরে যান ল্যাথাম। পরের ওভারেই কোনও রান না করে ফিরে যান আরও এক অভিষিক্ত কোল ম্যাককঞ্চি। সাকিবের বলে শর্ট মিডউইকেটে মুশফিকুর রহিমকে ক্যাচ অনুশিলনের সুযোগ করে দিয়ে ৮ম কিউই হিসেবে অভিষেকেই শূন্য রানে ফেরেন তিনি।

স্বীকৃত সকল ব্যাটসম্যানের বিদায়ে নিকোলসকে হাত খুলতে হতই। সেটাই করতে গেলে সাইফ উদ্দিনের বলে লং অনে মুশফিকের তালুবন্দি হয়ে ২৪ বলে ১৭ রান করে ফেরেন তিনি। এরপরে বাকি ছিল শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। আজাজ পাটেল ও জ্যাকব ডাফিকে ফিরিয়ে সেই আনুষ্ঠানিকতা সারেন মোস্তাফিজ। মাত্র ৬০ রানেই গুটিয়ে যাওয়া নিউজিল্যান্ডের এটিই সর্বনিম্ন টি-টোয়েন্টি স্কোর। এর আগে চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই ৬০ রানেই অল আউট হয়েছিল কিউইরা।

তার আগে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টসে জিতে ব্যাটিং নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। বাংলাদেশের একাদশে অস্ট্রেলিয়া সিরিজের স্কোয়াড থেকে দুইটি পরিবর্তন এসেছে। মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসকে জায়গা করে দিতে গিয়ে সরে যেতে হয়েছে শামীম হোসেন ও সৌম্য সরকারকে।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া