ঢাকারবিবার , ৪ জুলাই ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন আদালত
  4. আবোল-তাবোল
  5. উদ্যোক্তা
  6. উপসম্পাদকীয়
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. কলাম
  9. ক্যারিয়ার
  10. খেলার মাঠ
  11. গ্যাজেট
  12. জাতীয়
  13. টাকা-আনা-পাই
  14. দেশ পরিবার
  15. দেশ ভাবনা
পিসিআর ল্যাব নষ্ট-পরীক্ষা বন্ধ

করোনায় মৃত্যুতে রেকর্ড খুলনার, একদিনে ৪৬জনের মৃত্যু


খুলনায় থামছে না মৃত্যুর মিছিল।প্রতিদি্‌নই মৃত্যুর রেকর্ড গড়ছে খুলনা বিভাগ। রবিবার খুলনা জেলায় ১০জনসহ বিভাগে ৪৬জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে বিগত এক সপ্তাহে খুলনা বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২৩৩জনের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ৩০৪জন।আর গত এক সপ্তাহে  খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।


রবিবার খুলনার তিন করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ১৫জনের ও উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ৭জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ঘন্টায় এ হাসপাতালে খুলনার দৌলতপুরের মোছা. বেগম, সদরের খানজাহান আলী রোডের শেখ ওহিদুজ্জামান, দোলখোলার আনোয়ারা বেগম, সরদার হায়বাদ আলী এবং বাগেরহাট সদরের ইলিয়াস ফকির ও জাহাঙ্গীর হোসেন। খুলনা ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে খুলনা সদরের টুটপাড়ার জহুরুল হক ও ডুমুরিয়া উপজেলার  আলেয়া বেগম এবং বেসরকারী গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে খুলনার ডুমুরিয়ার চুকনগরের জাকির হোসেন ও গোলনার সালেহা বেগম, বানিয়াখামারের আলতাফ হোসেন ও বাগেরহাটের চিতলমারীর কাজী আহাদ, নড়াইল সদরের দর্জিপুরের হালিমা বেগম ও গোবরার মিন্টু বিশ্বাসের মৃত্যু হয়েছে। এরআগে ০৩জুলাই খুলনায় ১১জনসহ বিভাগে ৩২জনের মৃত্যু হয়। ০২জুলাই ২৭জন, ০১জুলাই ৩৯জন, ৩০জুন ২৭জন, ২৯জুন ৩২জন, এবং ২৮জুন ৩০জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত একসপ্তাহে খুলনা বিভাগে আক্রান্ত হয়েছে ৮হাজার ৪৪৭জন। এরমধ্যে ৪জুলাই ১হাজার ৩০৪জন, ৩জুলাই ৫৩৯জন, ২জুলাই একহাজার ২৫১জন, ১জুলাই একহাজার ২৪৫জন, ৩০জুন একহাজার ২৭৭জন, ২৯জুন এক হাজার ৩৬৭জন, ২৮জুন এক হাজার ৪৬৪জন বিভিন্ন আরটি-পিসিআরে পরীক্ষায় পজিটিভ হিসেবে সনাক্ত হয়েছেন।

এদিকে, খুলনায় করোনা সংক্রমনের হার কমাতে চলছে কঠোর লকডাউন। লকডাউনের সুষ্ঠ বাস্তবায়নে প্রশাসন, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও সেনাবাহিনীও ব্যাপক তৎপরতা দেখা গেছে। মোড়ে মোড়ে তল্রাশী ও বিভিন্ন শপিং মল এবং বাজার এলাকাগুলোতেও প্রশাসনের নজরদারী ও টহল ছিল লক্ষনীয়।কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে দিনব্যাপী মোবাইল কোর্টের অভিযানে মহানগর ও উপজেলায় ২২টি মামলায় ১২হাজার ৫৫০টাকা জরিমানা করা হয়েছে।রবিবার সকাল থেকেই মহানগরে ০৮ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট এবং ০৯টি উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনারগণ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এ সময় মহানগরী ও উপজেলায় স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন ও কঠোর বিধি নিষেধ নিশ্চিতকরণে মাক্স না পরায় ২২জনকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় পুলিশ, আনসার, বিজিবি, সেনাবাহিনীসহ সকল সংশ্লিষ্ট আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সহযোগীতা করেন।

এদিকে, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ায় করোনা পরীক্ষা বন্ধ হয়ে গেছে। শনিবার ও রবিবার দুই দিনে খুলনায় সর্দি-জ্বর, কাঁশিসহ বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে আসা রোগীদের পরীক্ষা করা যাচ্ছে না। করোনা পরীক্ষা নিয়ে চরম বিড়ম্বনায় পড়েছেন সাধারন মানুষ। তবে কিছু নমুনা কালেকশন করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা: মেহেদী নেওয়াজ জানান, গত বৃহষ্পতিবার  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত পিসিআর ল্যাব ভাইরাস কন্টামিনেটেড হওয়ায় করোনা পরীক্সা বন্ধ হয়ে গেছে। এ সময়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে বেশকিছু পরীক্ষা চলছিলো। তবে সেটিও শনিবার থেকে বন্ধ হয়ে গেছে। দ্রুততার সাথে ল্যাব দুটি চালুর জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে। আশা করছি দ্রুতই আবারও পরীক্ষা চালু করা সম্ভব হবে।

সর্বশেষ - জাতীয়