ঢাকারবিবার , ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

একজন মায়ের এমন মৃত্যু সত্যিই ট্রাজেডি!


কৃষ্ণা ভট্টাচার্য। বয়স পঞ্চাশোর্ধ্ব। ৩১ আগস্ট চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৩ নাম্বার ওয়ার্ডে অচেতন অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছিল। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাত ১০ টার কিছুক্ষণ আগে তিনি মারা যান।



অসুস্থ কৃষ্ণা ভট্টাচার্য্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছিলেন। অনেক কাঠ খড় পুড়িয়ে অসুস্থতার খবর পাঠানো হয়েছিল তার পরিবারের কাছে। অসুস্থ স্বামী খবর পেয়ে ছুটে আসেন। স্বামী শ্যামল ভট্টাচার্য্য ভালো করে চোখেও দেখেন না।


শ্যামল ভট্টাচার্য্য বলেন, উনাদের বাড়ি পটিয়া, উনাদের কোন সন্তান-সন্ততি নেই।


নিঃসন্তান এবং আর্থিক ভাবে অসচ্ছল হওয়ার কারণে হাসপাতালে থাকাটাও তাদের জন্য কষ্টকর হয়ে পড়েছিল । নিঃসন্তান হওয়াতে এই বৃদ্ধ বয়সে মেডিকেলে রাতযাপন করে, কিংবা তাদের সহায়তা করার মতো কেউই ছিলো না । আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে পর্যাপ্ত চিকিৎসা করাও সম্ভব হয় নি। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতলে একটি বেড ফ্রীতে পাওয়া যায়। কিন্তু মেডিসিন কিংবা পরীক্ষা করাতে প্রয়োজন হয় অর্থের। যা বৃদ্ধ মানুষটির পক্ষে সম্ভব হয়ে উঠেনি। মহা মৃত্যুঞ্জয় ফাউন্ডেশন নামের একটি সামাজিক সংগঠন ঘটনার স্বাক্ষী ছিলো। সংগঠনের সদস্যরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছিলো কিন্তু শেষ রক্ষা হলো এ দুঃখিনী মায়ের। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ি থেকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করা হয়।


মৃত্যুঞ্জয়ী ফাউন্ডেশনের সদস্য শুভঙ্কর চক্রবর্তী দেশকে জানান, আমরা সবাই প্রানপণ চেষ্টা করেছি এ মায়ের জন্য কিছু করতে কিন্তু নিয়তি উনাকে কেড়ে নিলো।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া