ঢাকামঙ্গলবার , ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অন্য আকাশ
  2. আইন আদালত
  3. আবোল-তাবোল
  4. উদ্যোক্তা
  5. উপসম্পাদকীয়
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. কলাম
  8. ক্যারিয়ার
  9. খেলার মাঠ
  10. গ্যাজেট
  11. জাতীয়
  12. টাকা-আনা-পাই
  13. দেশ পরিবার
  14. দেশ ভাবনা
  15. দেশ সাহিত্য

আধাঁরের বুকে আলো এএসপি জুয়েল রানা

মোঃ আবু কোরাইশ, দাউদকান্দি প্রতিনিধি
সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১ ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ


যুদ্ধটা ঘুনে ধরা সমাজের বিরুদ্ধে, ক্ষমতার দম্ভ, অবৈধ বেদখল, মাদক আর সন্ত্রাস সব কিছু মিলে যখন গ্রাস করে সুন্দর একটি সমাজ। অন্যায় যখন পরিণত হয় নিয়মে, সব জায়গা যখন চলে যায় প্রভাবশালীদের দখলে, এসব অনিয়ম- অন‍্যায়ের বিরুদ্বে অকুতোভয়ে, দৃঢ়চিক্তে রুখে দাড়ানো বহুমাত্রিক কর্মবীর মানুষটির নাম জোবায়ের জুয়েল রানা। সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দাউদকান্দি-চান্দিনা সার্কেল)


অপরাধ দমন, মাদক প্রতিরোধে জিরো টলারেন্স, সন্ত্রাসী র্নিমূলে সুদৃঢ় অবস্থান, পাশাপাশি র্নিমল সমাজ বির্নিমানে যুবকদের খেলাধূঁলায় অংশ গ্রহনে উৎসাহ প্রদান,প্রতিবন্ধী অচল কিশোরকে হুইল চেয়ার দিয়ে সচল করে হাসি ফুটানো, করোনাকালীন সংকট মোকাবেলায় অসহায় কর্মহীনদের মাঝে খাদ্য-সামগ্রী বিতরণ, করোনায় জীবন সংকটে পতিতদের জন‍্য অক্সিজেন সিলিন্ডারের ব‍্যবস্থা করাসহ সহনশীল সু-সম্প্রতিময় সমাজ গঠনে, নিয়মিত সাধারণ মানুষকে মোটিভেশন করা, তাঁকে পরিণত করেছে কর্মক্ষেত্রে বৈচিত্রময় কর্মের কাব‍্যিকতার সব‍্যসাচী।

তিনি এ সার্কেলে যোগদানের পূর্বে এ অফিসটি তেমনভাবে আর্কষন করেনি মানুষের মনযোগ। যা এখন পরিণত হয়েছে মানুষের আস্থার প্রতীক হিসেবে। যে অফিসে এসে ছিন্নমূল অসহায়দের ক্রন্দন থেমে যায়, ভালবাসা আর সহযোগীতায়। সততা আর আদর্শের রক্ত কনিকা বহমান যার শিরা-উপশিরায়। সন্ত্রাস – মাদকহীন সুশীল সমাজ বির্ণিমানে একজন নির্লোভ দায়িত্বশীল পুলিশ অফিসার, একজন স্বপ্নভূক মানুষ জোবায়ের রানা।

তিনি গোমতি নদীতে দীর্ঘদিনের সমস‍্যা চাঁদাবাজি এক সপ্তাহের মধ‍্যে বন্ধে ভলগেট মালিকদের অবস্থান-ধর্মঘটে প্রকাশ‍্যে ঘোষনা দিয়ে মাত্র দুই দিনের মাথায় গ্রেফতার করেন দৃর্ধষ নৌ অপরাধীদের। তিনি অপরাধীদের বিরুদ্বে জ্বলে উঠা এক স্ফুলিঙ্গ।
তিনি নিঃসংশয় চিক্তে গুড়িয়ে দেন অবৈধ ড্রেজার। বন্ধ করে দেন প্রভাবশালীদের অবৈধ ভ্রাম‍্যমান সিএনজি পাম্প।জব্দ করেন পরিবেশের জন‍্য ক্ষতিকর পলিথিন। বাজারে উচ্ছেদ করেন অবৈধ স্থাপনা,সুগম করেন সাধারণ পথচারীদের চলাচল। যেখানেই অনিয়ম সেখানেই চলে তাঁর সাড়াঁশি অভিযান। তিনি নিজ উদ‍্যোগে ভরাট করেন মহাসড়কে গর্ত হয়ে যাওয়া খানাখন্দ। অপরাধীদের বিরুদ্বে প্রস্তত থাকে তার কড়াঁ ডোজ। অপরাধ দমনে রাত আর দিন তার কাছে নেই কোন পার্থক‍্য। তিনি মহাসড়কে চিনতাই- ডাকাতি রোধে যাত্রীদের সচেতনতায় বিলি করেন লিফলেট, মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ন জায়গায় স্থাপন করেন ফেষ্ঠুন। ৮১৪ পিস বিয়ার আটকে দেন অবলীলায়। করোনাকালের মহাদূর্যোগেও একটি মহৎ প্রাণ সক্তা, দেখা যায় তার মধ‍্যে। ময়লা ছেঁড়া জামা – কাপড় পরা,অশিক্ষিত, দিনমজুর,নরসুন্দর অথবা পাদুকা মেরামতকারী লোকজনও তাঁর কাছে গন‍্য হন সম্মাণিত নাগরিক হিসেবেই।পোষন করেন সব শ্রেণী-পেশার মানুষের জন‍্য সেবার সমান মনোবৃত্তি।

যেখানে নেমে আসে দূর্বিসহ আধাঁর, খবর পেলে তিনি সেখানেই জ্বেলে আসেন আশার মশাল। তিনি যেন এক আশার পাঞ্জেরী। আর তাই এমন একজন সেরা মানুষকে, নিরলস কাজের মূল‍্যায়ন স্বরুপ সেরা-শ্রেষ্ঠ এমন উপমায় ভৃষিত করে সম্মাণনা জানাতে ভূল করেনি পুলিশ সদর দপ্তর। অপরাধ দমনের মুন্সিয়ানার জন‍্য পেয়েছেন শ্রেষ্ট পুলিশ পদক আর বাহিনীর সুন্দর ভাবমূর্তি তৈরী এবং ক্লিন ইমেজের জন‍্য পেয়েছেন শুদ্বাচার পুরুষ্কার। তিনি শ্রেষ্ট আর শুদ্ধাচার পুলিশ অফিসার এর এক অনুপম যুগলবন্ধী।

এএসপি জোবায়ের জুয়েল রানা দৈনিক দেশ প্রতিনিধি’র সাথে নিজ কার্যালয়ে আলাপকালে বলেন, সেবা করার সুযোগ পাওয়াটা আল্লাহ’র রহমত, আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহ আমাকে সেই সুযোগ দিয়েছে। তাই প্রতিটা মূহুর্তই আমি-আমার উপর রাষ্ট্রের অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার জন‍্য সচেষ্ট থাকি।

জুয়েল রানা একজন স্বপ্নবাজ সব‍্যসাচী। তিনি যতটা না খবর পড়েন তার চেয়ে বেশি খবরের জম্ম দেন। প্রতিনিয়ত হন খবরের শিরোনাম। যে খবর পড়ে আশান্বিত হয়ে উঠেন নিপীড়িত,বঞ্চিত মানুষ। তিনি অপরাধীদের চক্ষুসূল সাধারণ মানুষদের হৃদয়ের চিলেকোঠায় অধিকার করেছেন আপন মহিমায়। তাই মানুষ চায় এ কর্মস্থল যেন হয় তার সাফল‍্যময় অনুকরণীয় গল্পগাথাঁ,অমিত ভালবাসার উপ‍্যাখ‍্যান।

সর্বশেষ - সোশ্যাল মিডিয়া